তাহিরপুরে গৃহবধূকে ধর্ষণ, ধর্ষক গ্রেপ্তার

তাহিরপুর প্রতিনিধি
তাহিরপুরে এক গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। রবিবার ভোর রাতে উপজেলার সীমান্তবর্তী বাদাঘাট ইউনিয়নের লামাশ্রম গ্রামে এই ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে।
এ ঘটনায় ধর্ষিতার স্বামী বাদী হয়ে বাদাঘাট ইউনিয়নের লামাশ্রম গ্রামের ধর্ষক সাত সন্তানের জনক মঞ্জুরুল হক কে আসামী করে তাহিরপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলা দায়েরের পর তাহিরপুর থানা পুলিশের একটি দল অভিযান চালিয়ে উপজেলার সীমান্তবর্তী লামাশ্রম গ্রাম থেকে ধর্ষক মঞ্জুরুল কে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তারকৃত মঞ্জুরুল হক উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের লামাশ্রম গ্রামের মৃত. রিয়াজ উদ্দিনের ছেলে।
জানা গেছে, গৃহবধূর স্বামী পেশায় একজন সিএনজি চালক। গত রবিবার রাত দেড়টার দিকে মোবাইল ফোনে পূর্ব পরিচিত একই ইউনিয়নের জাঙ্গালহাটি গ্রামের হাফিল উদ্দিন কল করে বলে তাকে সুনামগঞ্জ সদর থেকে নিয়ে আসার জন্য। কল পেয়ে সে তার স্ত্রী ও ছোট বোনকে বাড়িতে রেখে হাফিল উদ্দিনকে নিয়ে আসতে সুনামগঞ্জ সদরে যায়।
এইদিকে ভোর রাতে গৃহবধূ প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে ঘর থেকে বের হলে আগে থেকে উৎ পেতে থাকা মঞ্জুরুল হক তাকে জাপটে ধরে ঘরের ভিতর নিয়ে মুখে কাপড় দিয়ে বেঁধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। পরে গৃহবধূ তার স্বামীকে বিষয়টি জানায়।
তাহিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আব্দুল লতিফ তরফদার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, ভিকটিমকে উদ্ধার করে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ধর্ষকের বিরোদ্ধে থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত ধর্ষককে মঙ্গলবার দুপুরে কোর্ট হাজতে পাঠানো হয়েছে।