‘তিনি ছিলেন অর্গানিক ফিলোসফার’

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় সভাপতি কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেছেন, ‘কমরেড শ্রীকান্ত দাসের মৃত্যু হলো অক্ষয়। মৃত্যুর পরবর্তীকালেও যে মানুষ ভবিষ্যতের জন্য অবদান রাখতে পারে সেরকম এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত তিনি আমাদের কাছে রেখে গেছেন। কমরেড শ্রীকান্ত দাসের দেহদান ভবিষ্যৎ নির্মাণের প্রয়োজনে বর্তমানের কর্তব্য যে অক্ষয় হয়ে থাকে সে উপলব্ধিটাই প্রকাশিত হয়। তাইতো তিনি অর্গানিক ফিলোসোফার বা প্রাকৃতিক দার্শনিক।
গত রবিবার কমরেড শ্রীকান্ত দাস’র ১২তম মৃত্যুবার্ষিকীর স্মরণসভায় তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, মানুষকে শৃংখলমুক্ত করার কাজে শোষণ-বৈষম্যহীন সমাজ কায়েমের জন্য লড়াই-সংগ্রামে তিনি জীবনভর বিশ্বস্ততার পরিচয় দিয়েছেন।
শ্রীকান্ত সংহতি পরিষদ যুক্তরাজ্যের আয়োজনে লন্ডনে অনুষ্ঠিত শ্রীকান্ত দাস’র ১২তম মৃত্যুবার্ষিকীর ভার্চুয়াল স্মরণসভায় সভাপতিত্ব করেন সংহতি পরিষদের অন্যতম উদ্যোক্তা এবং কমিউনিস্ট পার্টির যুক্তরাজ্য শাখার সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য কমরেড অ্যাডভোকেট আবেদ আলী আবিদ।
স্মরণসভায় আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ঐক্য ন্যাপের সংগ্রামী সভাপতি প্রবীণ রাজনীতিবিদ পঙ্কজ ভট্টাচার্য। তিনি বলেন, শ্রীকান্ত দাস গানে গানে যেমন মানুষকে জাগিয়েছেন তেমনি আন্দোলন-সংগ্রামকে অগ্রসর করে নিতে ভূমিকা রেখেছেন আমৃত্যু। সব ধরনের শোষণ নির্যাতন নিপীড়নের বিরুদ্ধে তিনি ছিলেন চারণ বিপ্লবী।
স্মরণসভার শুরুতে সূচনা ও স্বাগত বক্তব্য রাখেন শ্রীকান্ত সংহতি পরিষদের অন্যতম সংগঠক সাংবাদিক জুয়েল রাজ।
কমরেড শ্রীকান্ত দাস’র স্মরণসভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী কেন্দ্রীয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক জামশেদ আনোয়ার তপন, উদীচীর কেন্দ্রীয় সংসদের সহ সভাপতি রফিকুল হাসান খান জিন্নাহ, কবি শামীম আজাদ, মুক্তিযুদ্ধের প্রবাসী সংগঠক মাহমূদ এ রউফ, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের প্রাক্তন নেতা ও সুপ্রিম কোটের্র সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট তোবারক হোসাইন, ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি সিলেটের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা সুব্রত চক্রবর্তী জুয়েল, দিরাই কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ মিহির রঞ্জন দাস, যুক্তরাজ্য জাসদের অন্যতম নেতা মুজিবুল হক মনি, গণসঙ্গীত শিল্পী গোপাল দাস, লেবার পার্টি নিউহাম কাউন্সিলের ওয়ালএন্ড ওয়াডের্র চেয়ারপার্সন স্বরূপ শ্যাম চৌধুরী শিবু, বাংলাদেশি ওয়াকার্স কাউন্সিল যুক্তরাজ্য শাখার সভাপতি শাহরিয়ার বিন আলী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ডক্টর সুদীপ চক্রবর্তী, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি সিলেট জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন সুমন, সুনামগঞ্জ জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক এনাম আহমেদ, যুব ইউনিয়ন সিলেটের অন্যতম নেতা অ্যাডভোকেট মনির উদ্দিন, যুগভেরী সিলেটের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সাংবাদিক অপূর্ব শর্মা, শাল্লা উদীচীর সভাপতি অধ্যাপক তরুণ কান্তি দাশ ও সাধারণ সম্পাদক চম্পা তালুকদার, কবি ও লেখক নীলকান্ত দাস, যুব ইউনিয়ন যুক্তরাজ্য শাখার সভাপতি ইফতেখারুল হক পপলু, কমরেড শ্রীকান্ত দাস’র সন্তান ও বাংলাদেশি ওয়ার্কার্স কাউন্সিল যুক্তরাজ্যের সাধারণ সম্পাদক সুশান্ত দাস প্রশান্ত, ইন্দ্রজিত দাস প্রমুখ।
স্মরণসভায় শ্রীকান্ত দাস’র মরণোত্তর দেহদানের অঙ্গীকারনামা পাঠ করেন আবৃত্তিকার ও বাচিক শিল্পী মুনিরা পারভিন। স্মরণসভায় কমরেড শ্রীকান্ত দাস’র একটি গান পরিবেশন করে শাল্লা উদীচীর গণসঙ্গীত শিল্পীরা। এছাড়া গণসঙ্গীত পরিবেশন করেন ছাত্র ইউনিয়নের প্রাক্তন নেতা গণসঙ্গীতশিল্পী জুবের আক্তার সোহেল ও যুক্তরাজ্য উদীচির গণসঙ্গীত শিল্পী অসীমা দে।
স্মরণসভার ভার্চুয়াল প্লাটফরমে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাজ্য সিপিবির সাধারণ সম্পাদক নিছার আহমদ, উদীচী যুক্তরাজ্য সংসদের সভাপতি হারুনুর রশিদ, রাজনীতিবিদ ও সাংস্কৃতিক সংগঠক ওয়ালি রহমান, সাংবাদিক সুজাত মনসুর, সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি পঙ্কজ দে, কমিউনিস্ট পার্টি সিলেটের অন্যতম নেতা সৈয়দ ফরহাদ হোসাইন, ছাত্র ইউনিয়নের প্রাক্তন নেতা শামসুল আলম খান শাহিন, সাংবাদিক খলিলুর রহমান, উদীচী সুনামগঞ্জ জেলা সংসদের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, আজমিরীগঞ্জ উদীচীর প্রভাষক মানিক লাল চৌধুরী, কমরেড শ্রীকান্ত পুত্র দুরন্ত দাশ, পার্থ সারথি দাস, সুব্রত রায়, আদিত্য দাস, মুহিত সরকার, মিল্টন তালুকদার, তানভীর ইলিয়াস, সানী সরকার, ক্লিন্টন সরকার, রেমী তালুকদার, মৌসুমী তালুকদার প্রমুখ।
প্রেসবিজ্ঞপ্তি