দিরাই হাসপাতালে সন্তান হলেই প্রণোদনা

দিরাই প্রতিনিধি
দিরাইয়ে শিশু ও মাতৃ মৃত্যু হ্রাসে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সন্তান প্রসবে প্রণোদনা কার্যক্রম শুরু হয়েছে। ইউএনএফপিএ এর অর্থায়নে এ প্রকল্পের আওতায় হাসপাতালে এসে সন্তান প্রসব করানো মায়েদের প্রণোদনা প্রদান করা হচ্ছে।
শনিবার দুপুরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ প্রকল্পের আওতায় সন্তান প্রসবকারী মায়েদের হাতে প্রণোদনার টাকা তুলে দেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাহবুবুর রহমান।
এসময় উপস্থিত ছিলেন দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরএমও ডা. জয়ন্ত চক্রবর্তী, সাংবাদিক মোশাহিদ আহমদ, মিডওয়াইফ শিপ্রা রানী দাস প্রমুখ।
প্রণোদনার টাকা হাতে পেয়ে প্রতিক্রিয়ায় উপজেলার কর্ণগাঁও গ্রামের গৃহবধূ সুলেখা বিশ^াস বলেন, আজ সকালে প্রসব ব্যথা নিয়ে হাসপাতালে আসি। ডাক্তার ও নার্স আপারা খুব যত্ন সহকারে আমার সন্তান প্রসব করিয়েছেন। এখন আবার প্রণোদনার টাকা দিয়েছেন, এতে আমি খুবই খুশি। একই অনুভূতি ব্যক্ত করেন গত (শুক্রবার) দিরাই হাসপাতালে এসে সন্তান প্রসবকারী আরেক মা শাল্লা উপজেলার পুটকা গ্রামের নিয়তি রানী দাস।
স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, ইউএনএফপিএ’র সহযোগীতায় সুনামগঞ্জ সিভিল সার্জন কার্যালয় ও উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ দিরাইয়ের বাস্তবায়নে মেটারনিটি ওয়েটিং হোম প্রকল্পের আওতায় মা ও শিশু মৃত্যু রোধে স্বাস্থ্য কেন্দ্রে এসে সন্তান প্রসবে উদ্বুদ্ধকরণ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এ প্রকল্পে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে প্রসূতি সেবা গ্রহণ ও নিরাপদ প্রসব নিশ্চিতে স্বাস্থ্য কেন্দ্রে এসে সন্তান প্রসব করালে মায়ের জন্য প্রণোদনা ঘোষনা করেছে ইউএনএফপিএ।
দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য ও প. প. কর্মকর্তা ডা. মাহবুবুর রহমান বলেন, ইউএনএফপিএ’র সহযোগীতায় পাইলট প্রকল্প হিসেবে দিরাই উপজেলায় মা ও শিশু মৃত্যু রোধে স্বাস্থ্য কেন্দ্রে এসে সন্তান প্রসবে উদ্বুদ্ধকরণ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এছাড়া ১০ বছরের বেশী বিবাহিত জীবন এমন নারী, বয়স্ক মহিলা কিংবা জরায়ুর সমস্যাজনিত যে কোনো রোগীকে ফ্রি জরায়ু মুখের পরীক্ষা করা হচ্ছে।