দুই প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে আহত ৪০

দোয়ারাবাজার প্রতিনিধি
দোয়ারাবাজারে ইউপি নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় অনন্ত ৪০ জন আহত হয়েছে। শনিবার সকালে উপজেলার নরসিংপুর ইউনিয়নে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। দুই পক্ষই দেশীয় অস্ত্র ও ইটপাটকেল নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।
জানা যায়, নির্বাচন পরাজিত দুই স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী, উপজেলা বিএনপির আহবায়ক সামছুল হক নমু ও আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরুল আমিনের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। গত শুক্রবার দিবাগত রাতে পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী সামছুল হক নমু ভোটারদের নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করলে নুরুল আমিনের সমর্থকরা ক্ষিপ্ত হন। এরই জেরে শনিবার সানিয়া, প্রতাবের গাঁওসহ আশপাশের গ্রামের ভোটার সমর্থক এবং সামছুল হক নমু’র বালিউরা, চাটুরপাড়, ফুলকারগাঁও কয়েক গ্রামের দুই পক্ষের ভোটার সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
স্থানীয় ইউপি সদস্য আবদুল হান্নান মিয়া জানান, পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী সামছুল হক নমু ভোটারদের নিয়ে বিরূপ মন্তব্যের বিষয়টি নুরুল আমিনের এক সমর্থক গ্রামবাসীকে জানিয়ে দেয়। ওইদিন রাতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সামছুল হক নমু’র আত্মীয় ও নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য আবদুল হেকিম এলাকাবাসীর কাছে ছুটে আসেন। এসময় নুরুল আমিনের সমর্থকরা উত্তেজিত হয়ে পড়লে দুই পক্ষের কয়েক গ্রাম লোকজনের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে সংঘর্ষের আকার ধারণ করলে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
জানতে চাইলে দোয়ারাবাজার থানার ওসি দেবদুলাল ধর বলেন, কয়েক গ্রামের লোকজন একত্রিত হয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হলে পুলিশ দ্রুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসে। বর্তমানে এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। আহতদের চিকিৎসার জন্য সিলেটসহ বিভিন্ন হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।