দুর্বৃত্তের দেয়া আগুনে খড়ের ঘর ও হাঁসের খামার পুড়ে ছাই

শান্তিগঞ্জ অফিস
শান্তিগঞ্জ উপজেলায় দুর্বৃত্তের দেওয়া আগুনে কৃষক হাবিবুর রহমানের খড়ের ঘর, হাঁসের খামার ও অর্ধশতাধিক হাঁস পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। খড়ের ঘরে বেঁধে রাখা দুইটি মহিষের মধ্যে একটি মহিষ আগুনে দগ্ধ হয়েছে এবং অপরটি প্রাণে রক্ষা পায়। এতে লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন কৃষক হাবিবুর রহমান। এ ঘটনায় ঠাকুরভোগ গ্রামের কৃষক মৃত আছদ্দর মিয়ার ছেলে হাবিবুর রহমান থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
বুধবার ভোর রাতে শান্তিগঞ্জ উপজেলার ঠাকুরভোগ গ্রামে কৃষক হাবিবুর রহমানের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষণিক গ্রামবাসীদের চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনায় রক্ষা পায় পার্শ্ববর্তী বসত ঘর, বাংলা ঘর, গোয়াল ঘর।
কৃষক হাবিবুর রহমান জানান, ভোর রাতে তিনি বাংলা ঘরে ঘুমিয়ে ছিলেন। হঠাৎ বাংলা ঘরের পাশে লোকজনদের ফিস ফিস শব্দে তাঁর ঘুম ভেঙ্গে যায়। তখন বাংলা ঘর থেকে বের হয়ে একই গ্রামের প্রতিপক্ষ আসাব উদ্দিনের ছেলে কফিল উদ্দিন, রায়হান, ফারহান ও ফবির উদ্দিনকে আগুন দিতে দেখতে পান। এসময় হাবিবুর রহমানের চিৎকারে তারা দৌঁড়ে পালিয়ে যায়। পরে গ্রামবাসীরা চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। ততক্ষণে খড়ের ঘর, হাঁসের ঘর ও অর্ধশতাধিক হাঁস পুড়ে ছাই হয়ে যায়। খড়ের ঘরে বেধে রাখা একটি মহিষ আগুনে দগ্ধ হয়।
শান্তিগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাজী মুক্তাদির হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এ ঘটনায় ঠাকুরভোগ গ্রামের কৃষক মৃত. আছদ্দর মিয়ার ছেলে হাবিবুর রহমান থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।