দেশের সকল উন্নয়ন পরিকল্পনায় ভূমিকা রাখে জনশুমারি ও গৃহ গণনা- পরিসংখ্যান ব্যুরোর মহাপরিচালক

ইয়াকুব শাহরিয়ার, শান্তিগঞ্জ
বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর মহাপরিচালক মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম বলেছেন, ১৫ জুন থেকে সারা দেশে একযোগে শুরু হচ্ছে ৬ষ্ঠ জনশুমারি ও গৃহ গণনার কাজ। এটি প্রথম ডিজিটাল জনশুমারি ও গৃহগণনা। শুমারি একটি দেশের সকল উন্নয়ন ও পরিকল্পনার কাজে বড় ভূমিকা পালন করে থাকে। এজন্য সরকার প্রতি দশ বছর পর পর অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে জনশুমারির কাজ পরিচালনা করে থাকেন।
শনিবার বেলা ১১টায় শান্তিগঞ্জের পশ্চিম পাগলা ইউনিয়নের পাগলা সরকারি মডেল হাইস্কুল এন্ড কলেজে জনশুমারি ও গৃহ গণনা ২০২২ এর গণনাকারি ও সুপারভাইজারগণের চারদিন ব্যাপী প্রশিক্ষণ পরিদর্শনের সময় এসব কথা বলেন তিনি।
প্রশিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, দেশের প্রথম ডিজিটাল জনশুমারি ও গৃহ গণনার সবচেয়ে গর্বিত অংশ হচ্ছেন আপনারা। আপনারাই মাঠ পর্যায়ে বাড়ি বাড়ি গিয়ে দেশের সকল মানুষের সঠিক তথ্য সরকার পর্যায়ে পৌঁছাবেন। ইতিহাসের অংশ হয়ে থাকবেন আপনারা। এই এলাকার সকলের প্রতি আহ্বান, আপনারা গণনাকারিসহ জনশুমারি ও গৃহ গণনার কাজে সব ধরণের সহযোগিতা করুন।
পরিদর্শনের সময় অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন সিলেট বিভাগীয় পরিসংখ্যান কার্যালয়ের যুগ্ম পরিচালক মুহাম্মদ আতিকুল কবীর, সুনামগঞ্জ জেলা পরিসংখ্যান কার্যালয়ের উপপরিচালক কামাল উদ্দিন, জেলা শুমারি সমন্বয়কারী (সুনামগঞ্জ ২) মিন্টু সরকার, পাগলা সরকারি মডেল হাইস্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ সৈয়দ রমিজ উদ্দিন, শান্তিগঞ্জ উপজেলা শুমারি সমন্বয়কারী সুরঞ্জিত কর সুজন, শান্তিগঞ্জ জোন নং-০৪ এর জোনাল কর্মকর্তা (পূর্ব পাগলা ও পশ্চিম পাগলা) রিংকু আচার্য্য ও আইটি সুপারভাইজার মো. খালেদ আহমদ।
এসময় পশ্চিম পাগলা ইউনিয়নের সকল সুপারভাইজার ও গণনাকারীগণ উপস্থিত ছিলেন।