দোয়ারাবাজারে কৃৃষি শ্রমিককে কুপিয়ে হত্যা, লাশ মিললো ধানক্ষেতে

দোয়ারাবাজার প্রতিনিধি
দোয়ারাবাজারে আবদুস সালাম (৪১) নামের এক কৃষি ক্ষেতের শ্রমিককে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। মঙ্গলবার দুপুরে থানা পুলিশ উপজেলার দোহালিয়া ইউনিয়নের গোরেশপুর গ্রামের পশ্চিমের হাওরে ধানক্ষেত থেকে মৃতদেহ উদ্ধার করে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে মর্গে পাঠিয়েছে।
নিহত আবদুস সালাম উপজেলার সদর ইউনিয়নের পূর্ব নৈনগাঁও গ্রামের মৃত মমশ্বর আলীর পুত্র ও দোহালিয়া ইউনিয়নের গোরেশপুর গ্রামের যুক্তরাজ্য প্রবাসী আবদুল গনির বাড়ির কৃষি ক্ষেতের শ্রমিক।
জানা যায়, যুক্তরাজ্য প্রবাসী আবদুল গনির বাড়িতে ছোট বেলা থেকে কৃষি ক্ষেতের শ্রমিক হিসেবে কাজ করে আসছিল আবদুস সালাম। এক পর্যায়ে ওই বাড়ির আরেক শ্রমিকের মেয়েকে বিয়ে করে স্ত্রী, দুই কন্যা ও একমাত্র ছেলেকে নিয়ে প্রায় ২৫ বছর ধরে ওই বাড়িতে বসবাস করে প্রবাসীর কৃষি ক্ষেতের শ্রমিক ও বাড়িঘর দেখাশুনা করে আসছিল সে।
সোমবার সন্ধ্যায় পরিবারের কাছে গ্রামের মড়ল বাড়িতে যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে সে আর বাড়ি ফিরেনি। রাত গভীর হওয়ার পর আবদুস সালাম বাড়িতে না ফেরায় পরিবারের লোকজন তার সন্ধানে খোঁজতে থাকে। এক পর্যায়ে মঙ্গলবার সকাল ৬ টায় গ্রামের পশ্চিমের ধানক্ষেতে লাশের সন্ধ্যায় মিলে। পরে পুলিশে খবর দেয়া হলে সকালে ঘটনাস্থলে যান এডিশনাল এসপি সাহেব আলী পাঠান, ছাতক-দোয়ারার সার্কেল বিল্লাল হোসেন, দোয়ারা থানার ওসি নাজির আলম। দুপুরে লাশ উদ্ধার করে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায় পুলিশ।
এলাকার লোকজনরা জানান, যুক্তরাজ্য প্রবাসী আবদুল গনি, তার সহোদর আবদুল হাই কামরানদের সাথে একই গ্রামের ইউপি সদস্য আলী হোসেন গংদের দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোধ রয়েছে। এ বিরোধ নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে রয়েছে পাল্টাপাল্টি মামলা। একপক্ষ অপরপক্ষকে ঘায়েল করতে পরিকল্পিত ভাবে এমন হত্যাকান্ড ঘটাতে পারে বলে স্থানীয় এলাকাবাসীদের ধারনা।
এ ব্যাপারে থানার ওসি নাজির আলম হত্যাকান্ডের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, নিহতের মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। জয়নাল আবেদীন, তার ভাই অদুদ ও সুহেম সহ ৬জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়েছে।