দোয়ারাবাজারে ছাত্রাবাস দখলের পাঁয়তারা

দোয়ারাবাজার প্রতিনিধি
দোয়ারাবাজার সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রায় ৪০ বছরের পুরনো একটি ছাত্রাবাস দখলের পাঁয়তারার অভিযোগ ওঠেছে। স্কুলের দীর্ঘ দিনের ছাত্রাবাসটি দখলের পাঁয়তারা করায় স্কুলের বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থী, শিক্ষক, অভিভাবক ও জনসাধারণের মধ্যে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয়রা বলেছেন, স্কুল প্রতিষ্ঠার পর থেকে এই ছাত্রাবাসটি ছাত্র শিক্ষকরা বিদ্যালয়ের পাঠ কক্ষ কাম আবাসিক ছাত্রাবাস হিসেবে ব্যবহার করে আসছে। কিন্তু সম্প্রতি একটি মহল গোপনে বিদ্যালয়ের ছাত্রাবাস ভূমির নামজারি করিয়ে নিজেদের ভূমি বলে দাবি করছে।
বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক নজির উদ্দিন আহমদ বলেন, স্কুলের প্রতিষ্ঠাকাল থেকে ছাত্রাবাস হিসেবে শিক্ষার্থীরা এটি ব্যবহার করে আসছে। সম্প্রতি ছাত্রাবাসের পার্শ্ববর্তী বাসিন্দা সুমন রায়ের পরিবার এটি নিজেদের নামে নামজারি করেছে এবং দখলের পাঁয়তারা চালাচ্ছে।
প্রধান শিক্ষক আব্দুল মালেক বলেন, আমাদের স্কুলের ছাত্রাবাস দখলের চেষ্টা চলছে। বিষয়টি প্রশাসনকে জানিয়েছি। প্রয়োজনে আমরা আন্দোলনে নামব।
ছাত্রাবাসের পাশর্^বর্তী বাসিন্দা সুমন রায় বলেন, ছাত্রাবাসের ভূমিতে আমার দাদার ব্যক্তি মালিকানাধীন রেকর্ডিয় জমি রয়েছে। যখন বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয় তখন আমার পরিবারের পক্ষ থেকে শর্তসাপেক্ষে ছাত্রাবাসের জন্য ভূমি দেওয়া হয়েছিল। শর্ত দেওয়া হয়েছিল স্কুলের ভবন হওয়ার পর আমাদের জমি ছেড়ে দেওয়া হবে। কিন্তু দীর্ঘদিন হয়ে গেছে স্কুলের ভবন নির্মিত হয়েছে তবুও আমাদের জমির দখল ছাড়া হয়নি এখনও। আমরা এ ব্যাপারে প্রশাসনের দারস্থ হয়েছি।
দোয়ারাবাজার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দেবাংশু কুমার সিংহ বলেন, ‘এটা স্কুলের ছাত্রাবাস। বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য এসিল্যান্ডকে দায়িত্ব দিয়েছি