পাঁচ দিনে জেলায় করোনায় শনাক্ত ৫৯৪ জন, আক্রান্তের ৪৯.১৫ শতাংশই সদরের

স্টাফ রিপোর্টার
করোনায় শনাক্তের সংখ্যা বাড়ছেই। গত কয়েকদিন ধরে নমুনা পরীক্ষা বাড়ায় শনাক্তও বেড়েছে হু হু করে। ২৬ জুলাই থেকে ৩০ জুলাই পাঁচ দিনে ৫৯৪ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে। এরমধ্যে গত ২৬ জুলাই ১০৭ জন, ২৭ জুলাই ১২০ জন, ২৮ জুলাই ১১৬ জন, ২৯ জুলাই ১৩০ জন এবং ৩০ জুলাই ১২১ জন করোনায় আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। এরমধ্যে গত পাঁচ দিনে শুধু সদর উপজেলায় আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন ২৯২ জন। গত ২৬ জুলাই ৫০ জন, ২৭ জুলাই ৫৩ জন, ২৮ জুলাই ৫১ জন, ২৯ জুলাই ৮৬ জন এবং ৩০ জুলাই ৫২ জন করোনায় আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। অর্থাৎ মোট আক্রান্তের ৪৯.১৫ শতাংশই সদর উপজেলায় শনাক্ত হয়েছেন। এ পর্যন্ত সদর উপজেলায় সর্বমোট করোনা পজিটিভ হয়েছেন ১ হাজার ৯৫৫ জন। এরমধ্যে আরোগ্য লাভ করেছেন ১ হাজার ৩১৭ জন। আইসোলেসনে আছেন ৬২২ জন এবং করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন মোট ১৬ জন।
এ পর্যন্ত জেলায় মোট করোনা শনাক্তের সংখ্যা ৪ হাজার ৫৭৩ জনে পৌঁছাল। গত ২৪ ঘণ্টায় আগের দিনের চেয়ে নমুনা পরীক্ষা কিছুটা কম হওয়ায় শনাক্ত হয়েছেন আরও ১২১ জন। নমুনা পরীক্ষা করা হয় ৩৪৬ জনের। নমুনা পরীক্ষার তুলনায় আক্রান্ত শনাক্তের হার প্রায় ৩৪.৯৭ শতাংশ। এর আগে গত বৃহস্পতিবার সর্বোচ্চ ৩৯৬ জনের নমুনা পরীক্ষায় জেলায় করোনায় শনাক্ত হয়েছিলেন রেকর্ড ১৩০ জন। এখন পর্যন্ত এটিই শনাক্তের সর্বোচ্চ সংখ্যা।
শুক্রবার জেলা প্রশাসক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন স্বাক্ষরিত কোভিড ১৯ রিপোর্ট সূত্রে এই তথ্য জানা যায়, সদর উপজেলায় ৫২ জন, দোয়ারাবাজার উপজেলায় ৪ জন, বিশ^ম্ভরপুর উপজেলায় ৬ জন, তাহিরপুর উপজেলায় ১৬ জন, জামালগঞ্জ উপজেলায় ১১ জন, দিরাই উপজেলায় ৮ জন, ধর্মপাশা উপজেলায় ৩ জন, ছাতক উপজেলায় ২ জন, জগন্নাথপুর উপজেলায় ১৬ জন শনাক্ত হয়েছেন। করোনার সংক্রমণ পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে দেখা যায়, এ পর্যন্ত জেলায় আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৫৭৩ জনে। জেলায় এখন পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে মোট শনাক্তের হার ১৭.২০ শতাংশ। করোনায় মোট মৃতের সংখ্যা ৪৯ জন।
গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমিত ৩২ জন সুস্থতার তালিকায় এসেছেন। এদের মধ্যে সদর উপজেলার ১৬ জন, বিশ^ম্ভরপুর উপজেলার ১ জন, তাহিরপুর উপজেলার ১৩ জন দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার ২ জন। এ পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত মোট ৩ হাজার ২৯৭ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন।
এছাড়াও বর্তমানে আইসোলেসনে আছেন ১,২২৭ জন। এরমধ্যে সর্বোচ্চ ৬২২ জন আইসোলেসনে আছেন সুনামগঞ্জ সদর উপজেলায়। এছাড়াও ছাতক উপজেলার ১১২ জন, বিশ^ম্ভরপুর উপজেলায় ৪৪ জন, তাহিরপুর উপজেলায় ১৪৬ জন, জামালগঞ্জ উপজেলায় ৬০ জন, দিরাই উপজেলার ৬৬ জন, ধর্মপাশা উপজেলার ৩৬ জন, দোয়ারাবাজায় উপজেলায় ২৫ জন, জগন্নাথপুর উপজেলায় ৬৬ জন, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলায় ২৯ জন এবং শাল্লা উপজেলায় ২১ জন আইসোলেসনে রয়েছেন।
উল্লেখ্য, করোনাভাইরাস শনাক্তে এ পর্যন্ত ২২ হাজার ৭৮৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এরমধ্যে রিপোর্ট পাওয়া গেছে ২১ হাজার ৮৪৫ জনের। এরমধ্যে করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৩১০ জন। এদিকে এন্টিজেন নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৪ হাজার ৭৩৮ জনের। এরমধ্যে আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন ১২৬৩ জন।