বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল থেকে এমপি ও উপজেলা চেয়ারম্যানের ছবি অপসারণ

ধর্মপাশা প্রতিনির্ধি
মধ্যনগর উপজেলায় নির্মাণাধীন বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল থেকে উচ্চ আদালতের নির্দেশে স্থানীয় এমপি মোয়াজ্জেম হোসেন রতন ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন রোকনের ছবি অপসারণ করা হয়েছে। বুধবার বিকেলে ধর্মপাশা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ও মধ্যনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ছবি দুটি অপসারণের ব্যবস্থা গ্রহণ করেন। এ সময় ধর্মপাশা সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার আলী ফরিদ আহমদ, মধ্যনগর থানার ওসি জাহিদুল হক, ধর্মপাশা উপজেলা এলজিইডির প্রকৌশলী সাহাব উদ্দিন প্রমুখ।
ওই ম্যুরালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি থাকার কথা। কিন্তু নিয়ম বহির্ভূতভাবে ম্যুরালের নকশা পরিবর্তন করে সুনামগঞ্জ-১ আসনের এমপি মোয়াজ্জেম হোসেন রতন ও তার ছোট ভাই ধর্মপাশা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন রোকনের ছবি যুক্ত করা হয়। এ নিয়ে গত ২৬ ডিসেম্বর উচ্চ আদালতে রিট পিটিশন দাখিল করেন মধ্যনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য সাজেদ আহমদ। পরে গত ৮ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর ম্যূরাল থেকে এমপি ও তার ছোট ভাইয়ের ছবি সরানোর জন্য নির্দেশ দেন বিচারপতি কেএম কামরুল কাদের ও বিচারপতি মোহম্মদ আলীর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ। ওই আদেশে মধ্যনগরে নির্মিত বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে মূল নকশা অপরিবর্তিত রেখে সেখান থেকে এমপি ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের ছবি অসারণের জন্য ধর্মপাশা ও মধ্যনগরের ইউএনও এবং ঠিকাদারকে নির্দেশ দেওয়া হয়।
ধর্মপাশার ভারপ্রাপ্ত ইউএনও অলিদুজ্জামান ও মধ্যনগরের ইউএনও নাহিদ হাসান খান বলেন, উচ্চ আদালতের নির্দেশে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল থেকে এমপি ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের ছবি দুটি অপসারণ করা হয়েছে।