বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মঙ্গলকাটা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জলাবদ্ধতা

স্টাফ রিপোর্টার
সদর উপজেলা মঙ্গলকাটা উচ্চ বিদ্যালয় ভয়াবহ বন্যায় মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বন্যার পরবতীর্ সময়ে পুরো মাঠে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। এই জলাবদ্ধতায় দীর্ঘদিন ধরে ভোগান্তির শিকার হয়ে আসছেন শিক্ষক—শিক্ষার্থীরা। বিদ্যালয় মাঠ মাটি ভরাট করে উঁচুকরণের দাবি বিদ্যালয় কতৃর্পক্ষের।
১৯৯৭ সালে ৭৮ শতক জায়গার উপর প্রতিষ্ঠা হয় মঙ্গলকাটা উচ্চ বিদ্যালয়। ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণী পর্যন্ত শিক্ষার্থী রয়েছে ১ হাজারের উপরে। বিদ্যালয়ের মাঠ নিচু থাকায় সামান্য বৃষ্টি হলেই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। এই কারণে বিদ্যালয় মাঠে শরীর চর্চা ও খেলাধুলা বন্ধ থাকে মাসের পর মাস। এই সমস্যা নিরসনে মাটি ভরাট করে মাঠ উঁচুকরণের দাবি জানান বিদ্যালয় কতৃর্পক্ষ।
বিদ্যালয়ের শিক্ষক মাও. আবদুস ছুবহান, আবুল কাশেম আজাদ, মুহিত রঞ্জন দাস, সফিকুল ইসলাম, শরীফুল ইসলাম, আবদুল বারী, শেফালী বেগম, রওশন আরা আক্তার জানান, সাম্প্রতিক কালের ভয়াবহ বন্যায় দলাই নদীর বেড়িবাঁধ ভেঙে ঢলের পানি ঢুকে পড়ে বিদ্যালয়ে। এ সময় বিদ্যালয়ের মাঠসহ চেয়ার, টেবিল, কম্পিউটার ও আসবাবপত্রের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।
বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী শান্তনা ও শামীম আহমদ বলেন, জলাবদ্ধতার নোংরা পানি দিয়ে চলাফেরা করায় আমরা চর্ম রোগে আক্রান্ত হচ্ছি। আমাদের জাতীয় সঙ্গীত পাঠ করতে হচ্ছে শ্রেণী কক্ষে। জলাবদ্ধতার কারণে দীর্ঘদিন ধরে শরীর চর্চা ও খেলাধুলা বন্ধ রয়েছে।
বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক আকবর হোসেন বলেন, বিদ্যালয়ের একটি কম্পিউটার সহ অনেক মূল্যবান আসবাবপত্র বন্যার পানিতে নষ্ট হয়েছে। বন্যার পর কয়েক হাজার টাকা খরচ করে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার কাজ করিয়ে বিদ্যালয়ের সুস্থ পরিবেশ তৈরি করা হয়েছে।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরুল ইসলাম বলেন, বন্যার সময় ঢলের পানির প্রবল ে¯্রাতে মাঠের মাটি ধুয়ে নিয়ে গেছে। এই কারণে মাঠের বিভিন্ন স্থানে ছোট বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। হাঁটু পানি সমান জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে বিদ্যালয়ের মাঠে। শিক্ষক—শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি কমিয়ে আনতে দ্রুত মাটি ভরাট করা প্রয়োজন।
বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. আব্দুর রব বলেন, জলাবদ্ধতার কারণে দীর্ঘদিন ধরে মাঠে খেলাধুলা ও শরীর চর্চা বন্ধ রয়েছে। বিদ্যালয়ে আসা—যাওয়া শিক্ষক—শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি এখন চরমে। তিনি বলেন, কম খরচে বিদ্যালয়ের পাশে থাকা দলাই নদী থেকে মাটি কেটে মাঠে ভরাট করা যাবে। মাঠের জলাবদ্ধতা নিরসনে সরকারী উদ্যোগে দ্রুত মাটি ভরাট জরুরি প্রয়োজন।