বিবাদমান দুই গ্রুপে উত্তেজনা

দিরাই সংবাদদাতা
দিরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন আজ সোমবার। পৌরসভার বিএডিসি মাঠে হবে সম্মেলনের প্রথম অধিবেশনের সমাবেশ।
সমাবেশ প্রধান অতিথি থাকবেন সংগঠনের প্রেসিডিয়াম সদস্য নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, কার্যনির্বাহী সদস্য ডা. মুসফিক হোসেন চৌধুরী, আজিজুস সামাদ ডন, উপ দপ্তর সম্পাদক সায়েম খান। এছাড়াও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মতিউর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম. এনামুল কবির ইমন উপস্থিত থাকবেন।
এদিকে উপজেলায় আট বছর পর আজ আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনকে ঘিরে বিবদমান দুইটি গ্রুপই নিজেদের শক্তি জানান দিতে ব্যাপক লোক জমায়েত করার চেষ্টা করছে। সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের গুরুত্বপূর্ণ দুটি পদ পেতেও মরিয়া দুই গ্রুপের শীর্ষ নেতারা।
প্রয়াত জাতীয় নেতা সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের নির্বাচনী এলাকায় আওয়ামী লীগের শক্তিশালী অবস্থান থাকলেও গ্রুপিংয়ের কারণে সম্প্রতি সেই অবস্থায় নেই দলটি। গেল উপজেলা নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ রায়ের প্রার্থীতাকে ঘিরে দিরাই উপজেলায় আওয়ামী লীগে বিভক্তি তৈরি হয়।
সংগঠনের একাংশের নেতৃত্ব দিচ্ছেন সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ রায়। অন্য গ্রুপে রয়েছেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাবেক পৌর মেয়র মোশারফ মিয়া। এদিকে সম্মেলন সফল করতে দুই গ্রুপের অবস্থানে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সতর্ক অবস্থান রয়েছে। সম্মেলনে অনাকাক্সিক্ষত পরিস্থিতি মোকাবিলায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন থাকবে জানিয়েছেন ওসি শফিকুল ইসলাম ।
দলীয় সূত্রে জানা যায়, দিরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন এটি। দুই সপ্তাহ আগে জেলা কমিটি উপজেলা কমিটির সম্মেলনের সিডিউল প্রকাশ করায় অনেকটা বেকায়দায় পরে দলীয় নেতাকর্মীরা। বিধি মোতাবেক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন না করে উপজেলা কমিটির সম্মেলনে কাউন্সিলর নির্ধারণ করা কষ্টসাধ্য ব্যাপার তাদের জন্য। তাছাড়া বিবদমান দুই গ্রুপেই ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের বিভক্ত হয়ে পড়েছেন। সর্বশেষ গেল জেলা পরিষদের নির্বাচনে দুই গ্রুপের আলাদা আলাদা অবস্থানে দলের বিভক্তি আরও বেড়েছে। ওই সময় প্রদীপ রায় গ্রুপ অবস্থান নেয় জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে দলের মনোনীত প্রার্থীর পক্ষে আর মোশাররফ মিয়ার গ্রুপ অবস্থান নেন দলের বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে। নিজস্ব বলয় থেকে দুই গ্রুপের শক্তি প্রদর্শন করতে দেখা যায় জেলা পরিষদের নির্বাচনের দিন।
এর আগে গেল উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে সাবেক সভাপতি আলতাব উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ রায় ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রঞ্জন কুমার রায় দলের মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন। সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ রায় কে নৌকা প্রতীক দেওয়া হলে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করে তিনজনই পরাজিত হন। নির্বাচনে বিজয়ী হন স্বতন্ত্র প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মঞ্জুর আলম চৌধুরী। গেল পৌর নির্বাচনে একই ভাবে প্রদীপ রায়ের ভাই বিশ্বজিৎ রায় দলের মনোনীত প্রার্থী হলে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে পরাজিত হন মোশাররফ মিয়া। এরপর থেকেই দিরাই আওয়ামী লীগের গ্রুপিং চাঙা হয়। আলাদা আলাদা কর্মসূচি পালন করছে দুই গ্রুপ। দুই গ্রুপই সম্মেলন সফল করার ঘোষণা দিয়ে পৃথক শোডাউনও করছে।
সম্মেলনে সভাপতি পদে আগ্রহীরা হলেন আলতাব উদ্দিন, অ্যাড. সুহেল আহমদ, সিরাজ উদ দৌলা তালুকদার, মোশারফ মিয়া। সাধারণ সম্পাদক পদে প্রদীপ রায়, অভিরাম তালুকদার, রঞ্জন কুমার রায়।
জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মতিউর রহমান বললেন, সম্মেলন সুশৃঙ্খল করার জন্য সকলকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।