বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কী কী থাকছে

সু.খবর ডেস্ক
এবারের বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে থাকছে বৈচিত্র্য। পেট্রো ডলারের ঝনঝনানিতে বিশ্বের অন্যতম ধনী রাষ্ট্র কাতার, ব্যাপকতা আর জাঁকজমকতায় কার্পণ্য রাখছে না মোটেও। আল বায়াত স্টেডিয়ামে সুরের মূর্ছনায় হারিয়ে যাবেন ৬০ হাজার দর্শক। শাকিরা ও কিজ ড্যানিয়েলের ব্যাপারে রহস্য থাকলেও স্থানীয় শিল্পীদের পাশাপাশি পারফর্ম করবে কোরিয়ান ব্যান্ড বিটিএস। থিম সং গাইবেন লিও বেবি। তার সঙ্গে নাচবেন মানাল, রেহমা আর নোরা ফাতেহি। থাকছে জমকালো আতশবাজির ঝলকানি।
স্বপ্নের আল বায়াত স্টেডিয়াম। যেখানেই হবে স্বপ্নযাত্রার সূচনা। বাংলাদেশ সময় রোববার (১০ নভেম্বর) রাত ৮টা। হয়তো থেমে যাবে সব ব্যস্ততা। চোখ জোড়া লেপ্টে যাবে ওই টিভি সেটের সামনে। কাতার মহাযজ্ঞের শুরুটা হবে যেখানে। কৌতূহলের তুঙ্গে তাই কি থাকবে বিশ্বকাপের উদ্বোধনীতে।
কাতারের ইতিহাস ঐতিহ্য নিয়ে থাকবে বিশেষে প্রদর্শনী। উঠে আসবে মরুর বুকে কীভাবে ফুটল ফুল। বিশাল সব ইমারতের পেছনের গল্প। বিশ্বকাপের ইতিহাসও পাবে প্রাধান্য।
এরপর সুরের মূর্ছনায় হারিয়ে যাওয়ার পালা। ২২তম আসরের অফিসিয়াল থিম সং ‘দ্য ওয়ার্ল্ড ইজ ইওরস টু টেক’ গাইবেন লিল ববি। তার সঙ্গে বিশেষ পারফর্ম করবেন বলিউড হার্ডথ্রুব নোরা ফাতেহি। নোরার সঙ্গে থাকবেন মানাল ও রেহমা।
জোড় গুঞ্জন আছে গাইবেন শাকিরা আর কিজ ড্যানিয়েলও। কিন্তু বিষয়টি এখন পর্যন্ত রহস্যই রেখে দিয়েছেন আয়োজকরা। তবে কোরিয়ান বিখ্যাত ব্যান্ড বিটিএসের গান, তৈরি করবে ভিন্ন আবহ। যেখানে চমক বিটিএসের সর্বকনিষ্ঠ সদস্য জাংকুক। যিনি অংশ হতে যাচ্ছেন এই সাউন্ডট্র্যাকের। এছাড়াও উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দেখা যেতে পারে পপ গায়িকা দুয়া লিপা, ব্ল্যাক আইড পিস, জে বালভিন ও নাইজেরিয়ার সংগীতশিল্পী প্যাট্রিক নায়েমেকা ওকোরিকে। স্থানীয় শিল্পীদের পরিবেশনাও পাবে বিশেষ স্থান।
উদ্বোধন অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে প্রদর্শন করা হবে বিশ্বকাপের অফিশিয়াল মাসকট লা’ইব। আরবি যার অর্থ অতি দক্ষ খেলোয়াড়। এরপর শুরু হবে আতশবাজির ঝলকানি। আর এর মধ্যেই শেষে হবে জমকালো আয়োজন। স্টেডিয়ামে সরাসরি যা উপভোগ করবেন ৬০ হাজার দর্শক। এরপরই ইকুয়েডের কাতার ম্যাচের রোমাঞ্চ।
সূত্র : সময়টিভিঅনলাইন