বিশ্বম্ভরপুরে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্যবিবাহ বন্ধ

বিশ্বম্ভরপুর প্রতিনিধি
বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে ১৪ বছরের এক কিশোরী বাল্যবিবাহের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে। সোমবার উপজেলার সলুকাবাদ ইউনিয়নের ভাদেরঠেক গ্রামেও এই কিশোরীর বাড়িতে গিয়ে বিয়ে বন্ধ করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাদি উর রহিম জাদিদ।
জানা যায়, সোমবার সকালে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা নির্বাহি অফিসার গোপন সূত্রে খবর পান সলুকাবাদ ইউনিয়নের ভাদেরঠেক গ্রামে ১৪ বছরের এক কিশোরীর বিয়ের আয়োজন চলছে। বিয়ের আগ মুহূর্তে উপজেলা নির্বাহি অফিসার সাদি উর রহিম জাদিদ, মেডিকেল অফিসার ডাক্তার মৌমিতা চৌধুরী, থানার এসআই পঙ্কজ ঘোষ সহ পুলিশ ফোর্স নিয়ে মাহমুদ আলীর বাড়িতে উপস্থিত হন। মেডিকেল অফিসারের প্রাথমিক তথ্যে ও সঠিক কাগজপত্র উপস্থাপন না করায় অপ্রাপ্তবয়স্ক প্রমাণিত হয়। এরপর কনের পিতা মেয়ে প্রাপ্তবয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেবেন না মর্মে অঙ্গীকার নামা প্রদান করেন। এসময় পুলিশের মাধ্যমে বর পক্ষেকে বিষয়টি অবহিত করা হয়।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার জানান মেয়েটির বয়স ১৩/১৪ বছরের মত হবে।