বিশ্বম্ভরপুরে ইউনিসেফ প্রতিনিধির লেটআস লার্ন প্রকল্প পরিদর্শন

বিশ্বম্ভরপুর প্রতিনিধি
বিশ্বম্ভরপুরে ইউনিসেফ প্রতিনিধি মিসেস ভেরা মেনডোনকা এবং মি. এলাইন বালানদি ডমসাম লেট আস লার্ন প্রকল্পের আনন্দধারা প্রাথমিক বিদ্যালয়টি পরিদর্শন করেছেন। দাতাসংস্থা ইউনিসেফের সহযোগিতায় জাগরণী চক্র ফাউন্ডেশন বিশ^ম্ভরপুর ও শান্তিগঞ্জ উপজেলায় লেট আস লার্ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করে আসছে। প্রকল্পের আওতায় বিশ^ম্ভরপুর উপজেলায় ১২৫টি শিখন কেন্দ্রের মাধ্যমে ৫২৫০ জন শিক্ষার্থীর মাঝে শিক্ষাসহায়তা প্রদানের মাধ্যমে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করছে। প্রকল্প কার্যক্রমের নিয়মিত অংশ হিসাবে গত বুধবার ইউনিসেফ বাংলাদেশ এর ডেপুটি কান্ট্রি রিপ্রেজেনটেটিভ উপজেলার পলাশ ইউনিয়নের রসুলপুর গ্রামের ৩১৮ নং প্রকল্পটি পরিদর্শনকালে তারা শিক্ষার্থীদের সাথে কুশলবিনিময় ও লেখাপড়ার অগ্রগতি দেখেন এবং করোনাকলীণ সময়ে তারা কিভাবে লেখাপড়া করতো এবং বর্তমানে তারা কিভাবে লেখাপড়া করছে সে ব্যাপারে খোঁজ-খবর নেন। আলোচনার এক পর্যায়ে শিক্ষার্থীরা অতিথিদের উদ্দেশ্যে একটি ছড়াগান পরিবেশন করেন। শিক্ষার্থীদের সাথে আলোচনা শেষে তারা অভিভাবক, সিএমসি সদস্য এবং উপজেলা প্রশাসনের সাথে কথা বলেন। সকলের আন্তরিক সহযোগিতায় সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন এবং তাদের সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। এসময় প্রতিনিধিদলের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন সিলেট বিভাগীয় ফিল্ড অফিসের প্রধান জনাব কাজী দিল আফরোজা, এডুকেশন অফিসার তানিয়া লাইজু সুমি। পরিদর্শণকালীন সময়ে বিশ^ম্ভরপুর উপজেলার নির্বাহী অফিসার জনাব মোঃ সাদি উর রহিম জাদিদ, অফিসার ইনচার্জ মোঃ ইকবাল হোসেন, উপজেলা শিক্ষা অফিসার(ভারপ্রাপ্ত) মোঃ মাহমুদুল হাসান এবং জেলা গোয়েন্দা শাখার সাব- ইন্সúেক্টর মোঃ দেলোয়ার হোসেন উপস্থিত ছিলেন। জাগরণী চক্র ফাউন্ডেশন এর পক্ষে এসময় উপস্থিত ছিলেন প্রকল্প পরিচালক মুহাম্মদ ফিরোজ রহমান, এম এন্ড ই অফিসার মোঃ ইকরামুল হাসান রাজু ও মোঃ আনারুল ইসলাম, টেকনিক্যাল অফিসার রনি পারভীন, প্রোগ্রাম অর্গানাইজার নাসিমা খাতুন। ইউনিসেফ বাংলাদেশের প্রতিনিধি দল উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ হতে সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।