- সুনামগঞ্জের খবর » আঁধারচেরা আলোর ঝলক - https://sunamganjerkhobor.com -

বিশ্বম্ভরপুরে হাওরে শতভাগ ধান কাটা সম্পন্ন

স্বপন কুমার বর্মন, বিশ্বম্ভরপুর
বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায় হাওরের শতভাগ বোর ধান কাটা সম্পন্ন হয়েছে। গত ৮ এপ্রিল উপজেলার করচার হাওরে জেলা প্রশাসক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন আনুষ্ঠানিকভাবে ধান কাটার উদ্বোধন করেছিলেন। এ দিন থেকে করচার হাওরে ধান কাটার উৎসব শুরু হয়েছিল। বৃহৎ করচার হাওর, আঙ্গারুলী হাওর সহ উপজেলার সবকটি হাওরে ধান কাটা চলে।
কৃষকরা জানান, এ বছর বৈশাখীর শুরু থেকে এ পর্যন্ত চমৎকার আবহাওয়া থাকায় কৃষকরা মনের আনন্দে ধান কেটে, শুকিয়ে গোলায় তুলতে পেরেছেন। প্রথম দফায় ব্রি-২৮ জাতের ধান কাটা শুরু হয়েছিল। বালি পাথর কোয়ারীগুলো বন্ধ থাকায় শ্রমিক সংকটও ছিল না। তাছাড়া জেলা প্রশাসক সহ উপজেলা প্রশাসন ও কৃষি বিভাগ ধান কাটার ব্যাপারে খোঁজ খবর রাখেন ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে ধান কাটতে উৎসাহিত করেছেন। হারভেস্টার দিয়েও ধান কাটা হয়েছে। এবার বৃষ্টি বাদল না থাকায় জমি শুকনা থাকায় ধান কাটতে সুবিধা হয়েছে। উপজেলায় ২য় দফায় ব্রি-২৯ জাতের ধান কাটা হয়। এ বছর ধানের ফলন ভাল হয়েছে বলে কৃষকরা জানান।
মুক্তিখলা গ্রামের কৃষক মছিউর রহমান বলেন, আমাদের যৌথ পরিবারে ৪০ কেয়ার জমিতে বোর ধান চাষাবাদ করেছিলাম। ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। এত সুন্দর সোনার বৈশাখী বিগত কয়েক বছরেও দেখেনি। একই কথা বলেন রাধানগর গ্রামের আ. হেকিম ও কাহিন মিয়া।
ধান কাটার বেপারী (শ্রমিক) তরঙ্গীয়া গ্রামের নুর মোহাম্মদ বলেন, আবহাওয়া ভালো থাকায় আমরা মনের আনন্দে ধান কেটেছি। ভাল ফলনও হযেছে।
মাড়াই কলের মালিক কৃষনগর গ্রামের বাবুল মিয়া বলেন, এ বছর বৃষ্টি বাদল না থাকায় বোর ধান মাড়াই করতে খুব ভালো লেগেছে। আমরা এ বছর লাভমান হয়েছি। বোর ধান বাম্পার ফলন হওয়ায় এবং সময়মত ধান, খড় ঘরে তুলতে পেরে হাওর পাড়ের গ্রামগুলোতে কৃষকরা খুবই খুশি। আগামী বছর বোর চাষাবাদ আরো বৃদ্ধি পাবে বলে আশা করা যায়।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. নয়ন মিয়া বলেন, এ বছর উপজেলায় ১০,৬২৫ হেক্টর জমিতে বোর ধান চাষাবাদ হয়। এর মধ্যে হাওরে ৭,০৫৫ হেক্টর এবং হাওর বহিভূত ৩,৫৭০ হেক্টর। আবাহওয়া ভাল থাকায় হাওরে বাম্পার ফলন হয়েছে। হাওরের শতভাগ বোর ধান কাটা সম্পন্ন হয়েছে। তাছাড়া হাওর বর্হিভূত জমিতে ধান কাটা চলমান রয়েছে। এ বছর ধানের উৎপাদিত লক্ষমাত্রা ছিল ৬০ হাজর ৮শত ৬৮ মে.টন।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাদি উর রহিম জাদিদ বলেন, আবহাওয়া ভালো থাকায় এ বছর ভালো ফলন হয়েছে। কৃষকরা নির্বিঘেœ বোর ধান কেটে ঘরে তুলতে পেরেছেন। আমরা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কৃষকদেরকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সময়মত ধান কাটতে উৎসাহিত করেছি এবং সব সময় খোঁজখরব রেখেছি ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। গত ৫ মে থেকে সরকারি ক্রয় কেন্দ্রে বোর ধান সংগ্রহ অভিযান শুরু করা হয়েছে।

  • [১]