বিষন্ন ঈদ

হোসেন তওফিক চৌধুরী
ঈদ মানে খুশি। ঈদ মানে আনন্দ। একটি ঈদুল ফিতরের দিন, অপরটি ঈদুল আজহার দিন। কিন্তু বিগত দু’বছর থেকে সারা বিশে^ মরণঘাতি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় এবং লক্ষ লক্ষ মানুষের প্রাণহানীর ফলে ঈদের আনন্দ সর্বত্র ম্লান হয়েছে। বিশ্বের মুসলিম উম্মাহ বিষন্নভাবে ঈদ উদ্যাপন করছে। করোনা ভাইরাস মহামারীর জন্য উদ্ভুত পরিস্থিতিতে মানুষের রুজি রোজগারও আয় কমেছে এবং ব্যয় বেড়েছে। বিপুল পরিমাণ মানুষ চাকুরীচ্যুত হয়েছে। দেশে বেকার সমস্যা বাড়ছে। মধ্যবিত্ত, নিম্নবিত্ত এবং দিন আনি দিন খাই পর্যায়ের জনসমষ্টি জীবন ধারণে হিমশিম খাচ্ছে। দিশেহারা হয়ে পড়েছে। এমনি অবস্থায় ঈদের স্বাভাবিকতা নেই। পরিবর্তিত পরিস্থিতিতেই ঈদ পালিত হবে।
আরবী মাস ১০ই জিলহজের দিন বিশে^র ইতিহাসে এক অবিস্মরণীয় মহা দিবস। মুসলিম জাতির পিতা হজরত ইব্রাহিম (আ:) স্বপ্নযোগে আল্লার ইঙ্গিত পেয়ে তাঁর একমাত্র প্রাণপ্রিয় সন্তান হজরত ইসমাঈল (আ:) কে আল্লার সন্তুষ্টির জন্য কুরবানী করতে উদ্যত হয়েছিলেন। হজরত ইসমাঈল (আ:) এতে সম্মতি প্রকাশ করেছিলেন। পিতা-পুত্র উভয়েই কুরবানীর মহান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলেন। সন্তানের পরিবর্তে আল্লার ইচ্ছায় এক পশু কোরবানী হয়। তখন তিনি তাঁর ছেলেকে ফিরে পেলেন। আর এ অপূর্ব ও বিস্ময়কর কোরবানীর স্মারক হিসেবেই দুনিয়ায় মুসলমানদের জন্য ১০ই জিলহজ কোরবানীর দিন ধার্য্য হয়। ঈদুল আযহা হলো ত্যাগ-তীতিক্ষার পবিত্র দিন। এ দিন সারা বিশ্বের সামর্থ্যবান মুসলমানগণ কোরবানী করবেন। আর এ দিনেই পবিত্র হজ¦ পালিত হবে। ঈদ হচ্ছে সারা বিশে^র মুসলমানদের ঐতিহাসিক মিলন মেলা। তবে করোনা ভাইরাসের কারণে বিগত সালেও সীমিত আকারে পালিত হয়, এবারও পালিত হবে। শুধুমাত্র সৌদি আরবে বসবাসকারীরাই ঈদ পালন করতে পারবেন।
আজ বুধবার পবিত্র ঈদুল আযহা। সারাদেশের মসজিদে মসজিদে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদের জামায়াত অনুষ্ঠিত হবে। মানুষ আল্লাহর কাছে দোয়া করবেন করোনা ভাইরাসের মরণব্যাধি থেকে পরিত্রাণের জন্য। আল্লাহ আমাদের সবাইকে সুস্থ্য রাখুন।
লেখক : আইনজীবী ও কলামিষ্ট।