মন্ত্রণালয়ের ৪ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন

জগন্নাথপুর অফিস
সুনামগঞ্জের কুন্দানালা খালের উপর প্রায় ১৫ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিতব্য সেতুর ৫ গার্ডার ধ্বসে যাওয়ার ঘটনা তদন্ত করবে মন্ত্রণালয়ের তদন্ত টিম। মঙ্গলবার সড়ক ও সেতু মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (পরিকল্পনা) মো. জাকির হোসেনকে প্রধান করে এই ঘটনা তদন্তের জন্য ৪ সদস্যের তদন্ত টিম গঠন করা হয়েছে। মঙ্গলবার বিকাল ৪ টায় এই বিষয়ে জানতে চাইলে সড়ক সেতু মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আব্দুল মালেক এই তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেন। তদন্ত টিমকে সরেজমিন তদন্ত করে আগামী ৫ কর্ম দিবসের মধ্যে এই বিষয়ে রিপোর্ট দিতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।
এর আগে সোমবার দুপুরে সড়ক ও জনপথ বিভাগের ডিজাইন সেকশনের ৩ সদস্যের তদন্ত দলের প্রধান অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী শিশির কুমার রাউত, তদন্ত টিমের সদস্য তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী শাহাদত হোসেন, নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুর রহমান কাউচার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। আগামী ৬ দিনের মধ্যে এই তদন্ত টিমের রিপোর্ট জমা দেবার কথা রয়েছে।
সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়কের ডাবর পয়েন্ট থেকে জগন্নাথপুর-আউশকান্দি হয়ে রাজধানীর দুরত্ব কমানোর জন্য সড়কের প্রশস্তকরণের কাজ হচ্ছে গত কয়েক বছর ধরে। এই সড়কে ৭ টি নতুন সেতুর কাজ হচ্ছে গেল ৬ মাস হয়। রোববার সন্ধ্যায় ১০ কিলোমিটারের মাথায় কুন্দানালা খালের উপর নির্মিতব্য সেতুর ৫ টি গার্ডার একে একে ধ্বসে যায়।
ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের প্রকৌশলী হারুন অর রশিদ তাৎক্ষণিক দাবি করেন, কাজে কোন অনিয়ম হয় নি। ১৬০ টন ওজনের গার্ডার বসানোর সময় হাইড্রোলিক পাইপ ফেটে যাওয়ায় ওজন নিতে পারে নি, একটার ওপর আরেকটা পড়ে সব কয়টি ভেঙে গেছে।
কিন্তু স্থানীয় লোকজন দাবি করেছেন, এই সড়কে নির্মিতব্য ৭ সেতুতেই অনিয়ম হচ্ছে। অনিয়মের কারণেই এই ধ্বসের ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার সময় গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে কথা বলার সময় স্থানীয়রা এই সেতুগুলোর নির্মাণ কাজ সঠিক হচ্ছে কী-না, ডিজাইন ঠিক হয়েছে কী-না এসব বিষয় বিশেষজ্ঞ প্রকৌশলীদের দিয়ে তদন্ত করার দাবিও জানান।
সুনামগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী জহিরুল ইসলাম মঙ্গলবার বিকালে জানান, বুধবার থেকেই ভেঙে পড়া গার্ডারগুলো অপসারণের কাজ শুরু করবেন তারা। ওখানে নতুন করে গার্ডার নির্মাণ কাজও দ্রুত শুরু করার জন্য ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এমএম বিল্ডার্স এ- ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেডকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
সড়ক ও সেতু মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আব্দুল মালেক জানান, সুনামগঞ্জে সেতুর গার্ডার ভেঙে পড়ার ঘটনা ৫ কর্ম দিবসের মধ্যে সরেজমিনে তদন্ত করে রিপোর্ট দেবার জন্য বলা হয়েছে। এজন্য অতিরিক্ত সচিব জাকির হোসেনের নেতৃত্বে ৪ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।