লক্ষীপুরে চেয়ারম্যান প্রার্থীর নেতাকর্মীদের ওপর হামলা, মোটরসাইকেল ভাঙচুর

দোয়ারাবাজার প্রতিনিধি
দোয়ারাবাজার উপজেলার ৭নং লক্ষীপুর ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী জহিরুল ইসলামের নেতাকর্মীদের উপর হামলা, মোটরসাইকেল ভাঙচুর ও অস্ত্রের ভয় দেখানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। এ নিয়ে বুধবার স্থানীয় প্রশাসনের কাছে একটি লিখিত অভিযোগও করা হয়েছে জহিরুল হকের পক্ষ থেকে।
এতে উল্লেখ করা হয়, আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান আমীরুল হক এবং তাঁর কর্মী সমর্থকরা প্রতিদ্বন্দ্বি চেয়ারম্যান প্রার্থী জহিরুল ইসলামের ভোটার, নেতা কর্মী, সমর্থকদের ওপর হামলা চালিয়ে মারধর ও প্রকাশ্যে অবৈধ অস্ত্রের মহড়া দিচ্ছে।
এদিকে সন্ধ্যায় লিয়াকতগঞ্জ বাজারে নির্বাচনী অফিসে সংবাদ সম্মেলনে চেয়ারম্যান প্রার্থী জহিরুল ইসলাম বলেন, ভোটের মাঠে নিজের জনপ্রিয়তার ধ্বস নামায় বর্তমান চেয়ারম্যান আমীরুল হক এখন বেপরোয়া হয়ে উঠেছেন। নিজে এবং তার লোকজন দিয়ে প্রকাশ্যে আমার কর্মীদের ওপর হামলা চালাচ্ছেন। গত রাতে আমার কর্মী সমর্থকদের ওপর আক্রমণ চালিয়ে মারধর এবং আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে ফাঁকা গুলি করে প্রকাশ্যে হুমকি দিয়েছেন। এসময় আমার কর্মীদের ১৭টি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়েছে। আমীরুল হককে ভোট না দিলে কেন্দ্রে গিয়ে কোন লাভ হবে না বলেও প্রচার করছেন। আমি প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।
এ ঘটনার সত্যতা অস্বীকার করে চেয়ারম্যান প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আমীরুল হক বলেন, এব্যাপারে আমার কিছুই জানা নেই। তারাই এসব করছে।