লাউড়েরগড় সড়কে ভোগান্তি বেড়েই চলেছে

আকরাম উদ্দিন
তাহিরপুর উপজেলার লাউড়েরগড় বাজার থেকে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার শরীফগঞ্জ প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত সড়কের বেহাল অবস্থা। প্রতিদিন হাজারো যানবাহন ও মানুষজন চলাচল করে থাকেন এই সড়ক দিয়ে। সড়কের বিভিন্ন স্থান ভেঙে যাওয়ায় মানুষের ভোগান্তি এখন চরমে। জরুরিভিত্তিতে সড়ক মেরামতের দাবি এলাকাবাসীর।
স্থানীয়রা জানান, বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার শরীফগঞ্জ বাজার পার হয়েই পড়তে হয় ভাঙা সড়কের ভোগান্তিতে। সড়কের বিভিন্ন স্থানে পাকা ঢালাই ভেঙে রড বেরিয়ে পড়েছে। একাধিক স্থানে গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। ভাঙা পাথরের উপর দিয়ে খালি পায়ে চলাচল করা যায় না। যানবাহনও ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করে। এই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন বিভিন্ন উপজেলার হাজারো মানুষ চলাচল করেন। কয়েক বছর আগে সড়কের মেরামত কাজ হয়েছিল। তবে খুবই নি¤œমানের কাজ। তাই সড়কটি বেশি দিন টিকে থাকেনি। এই গুরুত্বপূর্ণ সড়কের দ্রুত মেরামতের দাবি স্থানীয়দের।
পথচারী জহির আহমদ বলেন, আমরা প্রতিদিন এই সড়ক দিয়ে লাউড়েরগড় বাজারে আসা-যাওয়া করে থাকি। সড়কে আমাদের যে দুর্গতি হয় তা সড়ক নির্মাণের দায়িত্বশীলদের বুঝানো যায় না। আমরা তো সড়ক নির্মাণ করতে পারবো না। তাই ধৈর্য ধরে চলাফেরা করি। এতে আমাদের ভোগান্তির শেষ নেই।
স্থানীয় বাসিন্দা আমির হোসেন বলেন, প্রতি বার লাউড়েরগড়ের এই সড়কের কাজ হয়। কিন্তু টেকসই কাজ হয় না কোনো সময়। ঠিকাদারগণ তাদের খেয়াল খুশি মতো মেরামত কাজ করে চলে যান। নির্মাণের কয়দিন পরেই সড়ক ভাঙা শুরু হয়। সড়কের টেকসই উন্নয়নের দাবি আমাদের।
ব্যবসায়ী নুরুজ্জামান বলেন, লাউড়েরগড় বাজারে আসা-যাওয়ার এই সড়কটি অতি গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু ভালমানের কাজ হয় না সড়কে। প্রতিদিন এই সড়ক দিয়ে হাজারো মানুষ ও যানবাহন চলাচল করে থাকেন। এই ঝুঁকিপূর্ণ সড়কে চলাচলে মানুষের ভোগান্তি দিনে দিনে বেড়েই চলেছে। সড়কের দ্রুত উন্নয়ন জরুরি প্রয়োজন।
শরীফগঞ্জের ব্যবসায়ী আবু বকর বলেন, আমরা এলাকাবাসী এই সড়ক দিয়ে লাউড়েরগড় বাজারে আসা-যাওয়া করে থাকি। গাড়ি করে প্রতিদিন লাউড়েরগড় বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করি। কিন্তু এই সড়কের যাতায়াতে যে ভোগান্তির শিকার হতে হয়। তা ভাষায় প্রকাশ করার মতো নয়। সড়কটি দ্রুত সংস্কারের দাবি আমাদের।
তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান করুণাসিন্ধু চৌধুরী বাবুল বলেন, লাউড়েরগড় সড়ক মানুষ ও যানবাহন চলাচলের অতি গুরুত্বপূর্ণ। সড়কটি বেশি ভেঙে যাওয়ায় মানুষের ভোগান্তি বেড়েছে মারাত্মকভাবে। এই সড়কের মেরামত কাজের জন্য স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরকে (এলজিইডি) অবহিত করা হয়েছে। শীঘ্রই দরপত্র আহ্বান করা হবে। এই সড়কের মেরামত কাজ দ্রুত শুরু হবে।