শাল্লায় হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট, বিভিন্ন উপজেলায় প্রতিবাদ সমাবেশ

সু.খবর রিপোর্ট
শাল্লা উপজেলার হবিবপুর ইউনিয়নের নোওয়াগাঁও গ্রামে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাটের প্রতিবাদে এবং দোষী ব্যক্তিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে বিশ্বম্ভরপুরে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
শুক্রবার বিকালে উপজেলা প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ উপজেলা শাখার আয়োজনে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ উপজেলা শাখার সভাপতি জীবন কৃষ্ণ দাশ’র সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক স্বপন কুমার বর্মণ’র পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ পলাশ ইউনিয়ন শাখার সভাপতি রুপেন্দ্র দেবনাথ, সাধারণ সম্পাদক স্বপন কুমার পাল, ধনপুর-সলুকাবাদ ইউনিয়ন শাখার সভাপতি রাকেশ হাজং, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের উপজেলা আহবায়ক কালী কুমার দাশ, যুগ্ম আহবায়ক শংকর বড়াল, উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক প্রভাত দাশ, উপজেলা যুব ঐক্য পরিষদের আহবায়ক ইন্দ্রলাল দেবনাথ, যুগ্ম আহবায়ক নির্মল সেন, সৈলেন দেবনাথ, কৃষ্ণ দেবনাথ, রাধা মাধব মন্দিরের সাধারণ সম্পাদক রঞ্জু পাল, মহিলা সদস্য অর্চ্চনা দেবী নাথ, রিতেন্দ্র দেবনাথ, মৃত্যুঞ্জয় শর্মা প্রমুখ।
জামালগঞ্জ
জামালগঞ্জে শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামের হিন্দু ধর্মাবলম্বী বাড়িঘরে হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বেলা ৩টায় উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ গেইটের সামনে এ মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন পূজা উদযাপন পরিষদের সহ সভাপতি অসিত রায় চৌধুরী। সাধারণ সম্পাদক সমরেন্দ্র আচার্য শম্ভুর সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন সুনামগঞ্জ জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সদস্য দ্বীজেন্দ্র লাল দাস, সাচনা রামকৃষ্ণ সেবাশ্রমের সভাপতি কৃপেশ বনিক, পূজা উদযাপন পরিষদের সদস্য সৈকত ঘোষ চৌধুরী ও মিটন পাল।
এছাড়া অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাচনা বাজার জগন্নাথ জিউর মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি অজয় পাল চৌধুরী, সহ সভাপতি জয়বেন্দ্র পাল, অর্থ সম্পাদক নান্টু বনিক, উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের পূজা বিষয়ক সম্পাদক মানিক বনিক, সদস্য উজ্জ্বল কান্তি দে, উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক মিহির সরকার, জামালগঞ্জ সদর ইউনিয়ন পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি শৈলেন্দ্র দেবনাথ, জামালগঞ্জ উত্তর ইউনিয়নের সভাপতি চন্দন কুমার রায়, ভীমখালী ইউনিয়নের সভাপতি গৌতম রায় ও সাধারণ সম্পাদক কৃপাসিন্ধু দত্ত, সাচনা বাজার ইউনিয়ন সাধারণ সম্পাদক বিমল দাস, মীরা রানী সূত্রধর প্রমুখ।
বক্তারা দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে যারা শাল্লার নোয়াগাঁওয়ের হিন্দু বাড়িঘরে হামলা চালিয়েছে তারা স্বাধীনতার শত্রু। অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশকে সাম্প্রদায়িকতার ছুবলে ধ্বংস করতে চায় তারা। ধর্মান্দ এই গোষ্ঠী হিন্দু-মুসলিমের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করে দেশকে অস্থিতিশীল করার পাঁয়তারা চালাচ্ছে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন দেশ আজ যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে তার পথে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে চায় তারা। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদের পাশাপাশি দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।


দোয়ারাবাজার
শাল্লা উপজেলার হবিবপুর ইউনিয়নের নয়াগাঁও গ্রামে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের উপর হামলা, বাড়িঘর ভাংচুর, লুটপাট ও নির্য়াতনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ ও হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ দোয়ারাবাজার উপজেলা শাখা।
বিকাল ৪টায় শ্রী শ্রী রাধা মদন মোহন জিউর মন্দির সংলগ্ন ছাতক দোয়ারা সড়কে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। ঘন্টাব্যাপি এ মানববন্ধনে বিভিন্ন সংগঠনের লোকজন অংশগ্রহণ করেন।
মানববন্ধনে পূজা উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক অজিত চন্দ্র দাসের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন পূজা উৎযাপন পরিষদের সভাপতি সোনাধন দে, আওয়ামীলীগ নেতা বরুণ চন্দ্র দাস, পুজা উদযাপন কমিটির সহ সভাপতি ডা. গোপিকা রঞ্জন চক্রবর্তী বাচ্চু, জেলা কমিটির সদস্য গৌরাঙ্গ লাল শিকদার, বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী দিপক রায়, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ সাংগঠনিক সম্পাদক প্রতাব রঞ্জন দাস, রিংকু কুমার দেব, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হরিধন দাস, দপ্তর সম্পাদক চিত্ত রঞ্জন দাস,চন্ডি দাস, গোপাল বৈষ্ণব, দুর্গা পুজা উৎযাপন কমিটির সভাপতি দয়াময় সুত্রধর, সহ সভাপতি রাবানন্দ্র বিশ্বাস, নিকিল সুত্রধর, বিনয় তালুদার, হিন্দু যুব পরিষদের নির্বাহী সভাপতি মন্তুষ দাস, রাজেন্দ্র দাস, পরেশ দাস, বলরাম দাস, ছাত্রলীগ নেতা নিউটন দাস সয়ন, আকাশ দাস, সজীব ধর, সৌরভ দাস, জগদীশ দেবনাথ প্রমুখ।
দক্ষিণ সুনামগঞ্জ
দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদ শুক্রবার বিকাল ৪টায় শান্তিগঞ্জ বাজারে সমাবেশ করে। উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ প্রচার সম্পাদক সুরঞ্জিত চৌধুরী টপ্পা ও উপজেলা ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক জুয়েল দাশের যৌথ পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি হাজী আবদুল হেকিম, পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এম পি’র একান্ত রাজনৈতিক সচিব মো. হাসনাত হোসেন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান প্রভাষক নূর হোসেন, পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি জ্যোতিভূষণ তালুকদার ঝন্টু, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান দোলন রানী তালুকদার, জয়কলস ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাসুদ মিয়া, শিমুলবাঁক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান জিতু, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান সুজন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সিতাংশু শেখর ধর সিতু।
এসময় উপস্থিত ছিলেন পশ্চিম পাগলা ইউপি চেয়ারম্যান নূরুল হক, উপজেলা যুবলীগের সহ সভাপতি রাজা মিয়া, বীর মুক্তিযোদ্ধা রবীন্দ্র তালুকদার, জেলা কৃষকলীগের সদস্য মাসুক মিয়া, উপজেলা কৃষকলীগের যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল গনি ভান্ডারী, উপজেলা যুবলীগ নেতা জয়ন্ত তালুকদার পুল্টন, উপজেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি আল মাহমুদ সোহেল, সাংগঠনিক সম্পাদক সমিরণ দাশ সুবীর, জয়কল ইউপি সদস্য সুজন তালুকদার, সাবেক মেম্বার হিরেশ পাল, পূজা উদযাপন পরিষদের যুগ্ম-সম্পাদক সমীরণ দাশ, মৃদুল দাশ, সাংগঠনিক সম্পাদক বিধু দাশ, ও মিঠুন চক্রবর্তী মিঠু প্রমুখ।
দিরাই
বিকাল ৪টায় থানা পয়েন্টে দিরাই উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ধনীর রঞ্জন রায়।
শিক্ষক বিশ^জিৎ চৌধুরীর পরিচালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য দেন বীর মুক্তিযোদ্ধা সন্তু চরণ দাস, দয়ময় দাস, নির্মল রায়, মানবেন্দ্র রঞ্জন দাস, শঙ্কর নাগ, হীরেন্দ্র দেবনাথ, ঝন্টু রায়, নগেন্দ্র চন্দ্র দাস, রাসেন্দ্র সরকার, হরিপদ দাস। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, দিরাই-শাল্লার শতবছরের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিকে নষ্ট করার হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর হামলা, ভাচুর ও লুটপাট করা হয়েছে। এ ন্যক্কারজনক ঘটনার সাথে জড়িতদের কঠোর শাস্তি দাবি করেন বক্তারা। যাতে করে ভবিষ্যতে আর এরকম ঘটনা না ঘটে।
জগন্নাথপুর
শাল্লা উপজেলার নোওয়াগাঁও গ্রামে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর হেফাজতে ইসলামের অনুসারীদের হামলার প্রতিবাদে বিকেলে জগন্নাথপুর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদ ও হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের উদ্যোগে মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় সংহতি প্রকাশ করে উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী সহ আরো কয়েকটি সামাজিক ও ধর্মীয় সংগঠন কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করে।
উপজেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি প্রনয় কান্তি সূত্রধর’র সভাপতিত্বে ও হিন্দু ছাত্র যুব ঐক্য পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক শশী কান্ত গোপের পরিচালনায় এতে বক্তব্য দেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান বিজন কুমার দেব, উপজেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সুধাংশু শেখর রায়, পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সতীশ গোস্বামী, সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য দেন উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লুৎফুর রহমান, উপজেলা যুবলীগের সহ সভাপতি শিক্ষক সাইফুল ইসলাম রিপন।
বক্তব্য দেন হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক জয়দ্বীপ সূত্রধর বীরেন্দ্র, শিক্ষক নেতা রূপক কান্তি দে, পৌর পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক হীরা মোহন দেব, হিন্দু ছাত্র যুব ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক বিভাস দে, শশ্মানঘাট উন্নয়ন পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক কাজল বণিক, উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক সাংবাদিক অমিত দেব, সাংবাদিক গোবিন্দ দে, উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীর নেতা মিটন দেব, মহা প্রভূর নাম প্রচার সংঘের নেতা শিক্ষক অনন্ত পাল, অদ্বৈত গীতা সংঘের নীরেশ দাশ, হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতা মেঘারকান্দি গ্রামের সম্পদ দাশ, পাইলগাঁও ইউনিয়নের নেতা ডাক্তার সেবক রঞ্জন দেব, রানীগঞ্জ ইউনিয়নের নেতা মন্তোষ দাস, অতীন্দ্র সূত্রধর, সুভাষ দাশগুপ্ত, উপজেলা ছাত্রলীগ প্রচার সম্পাদক সজিব রায়,বাংলাদেশ হিন্দু ছাত্র পরিষদের সভাপতি বিদ্যুৎ শীল, সাধারণ সম্পাদক জগন্নাথ দাশ প্রমুখ।


তাহিরপুর
দুপুরে বাংলদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ তাহিরপুর উপজেলা শাখার আয়োজনে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিবাদ মিছিল তাহিরপুর থানার সামনে থেকে বের হয়ে উপজেলা সদরের প্রধান প্রধান সড়কে প্রদক্ষিণ শেষে সমাবেশে মিলিত হয়।
বাংলদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ তাহিরপুর উপজেলা শাখার সভাপতি সুভাষ পুরকায়স্থ’র সভাপতিত্বে এবং ছাত্রলীগ নেতা জয় রায়’র সঞ্চালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন উপজেলা হিন্দু কল্যাণ ট্রাস্টের সভাপতি ডা. রতন গাঙ্গুলি, পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ফণী ভূষণ সরকার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলমগীর খোকন, উপজেলা অদ্বৈত সংস্কার কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক নান্টু তালুকদার, জয়নাল আবেদীন ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক হরি নারায়ণ বিশ্বাস, তাহিরপুর ফুটবল উন্নয়ন সমিতির সভাপতি গণেশ তালুকদার প্রমুখ।