শিক্ষার ক্ষেত্রে এখনও আমরা পিছিয়ে আছি -পরিকল্পনামন্ত্রী

জগন্নাথপুর ও শান্তিগঞ্জ অফিস
সুনামগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান বলেছেন, শিক্ষারক্ষত্রে এখনও আমরা পিছিয়ে আছি। এখনও ২০ থেকে ৩০ ভাগ মানুষ নিরক্ষর। এরমধ্যে নারী শিক্ষায় পিছিয়ে আছি আমরা। আমাদেরকে আরো অনেক পথ এগিয়ে যেতে হবে। বর্তমান সরকার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পন্ন উন্নয়ন জাতি গঠনের আধুনিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠায় নিরলসভাবে কাজ করছে।
শুক্রবার বিকেল ৫টায় জগন্নাথপুর উপজেলার পাটলী ইউনিয়ন উইমেন্স কলেজের নবনির্মিত একাডেমিক ভবনের উদ্বোধন শেষে আলোচনায় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন।
পরিকল্পনামন্ত্রী আরো বলেন, সরকারের উন্নয়নে বিএনপিসহ একটি মহল ঈর্ষান্বিত হয়ে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র করছে। তিনি বলেন, বিএনপির মাথা নষ্ট হয়ে গেছে। একবার বলে নির্বাচনে অংশ নেবে, আরেকবার বলে নির্বাচনে যাবো না। এই হচ্ছে বিএনপির অবস্থা।
তিনি বলেন, স্বাধীনতার অর্জনের আগে পাকবাহিনী এদেশের মানুষকে গোলামির শৃঙ্খলে আবদ্ধ করে রাখতে চেয়েছিল। কিন্তু বাঙালির প্রাণ পুরুষ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এদেশের মানুষকে গোলামি শৃঙ্খল থেকে মুক্তি করে স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। তাঁরই সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ দেশকে শিক্ষা, চিকিৎসা, যোগাযোগ, বিদ্যুৎ, বাসস্থানসহ দেশ ও জাতির সার্বিক উন্নয়নের এক মাইলফলক সৃষ্টি করে যাচ্ছেন।
তিনি বলেন, আমাদের অর্থনীতি উন্নয়নে প্রবাসীর ভূমিকা রয়েথে। এখানকার প্রবাসিরা শিক্ষার উন্নয়নের প্রশংসনীয় ভূমিকা রাখছেন। তিনি পাটলী ইউনিয়ন উইমেন্স কলেজে প্রতিষ্ঠায় প্রবাসীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, প্রতিষ্ঠানটি সরকারিকরণে আমার প্রচেষ্ঠা অব্যাহত থাকবে।
ইউমেন্স কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি পাটলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সিরাজুল হকের সভাপতিত্বে ও শিক্ষক নজির উদ্দিন আহমদের পরিচালনায় এতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি সিদ্দিক আহমদ। সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন কলেজের অধ্যক্ষ মোস্তফা মিয়া। এছাড়াও বক্তব্য দেন অ্যাডভোকেট হোসেন আহমদ।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথিসহ অন্যান্য অতিথিদের ফুল ও ক্রেস্ট দিয়ে বরণ করা হয়। এসময় পরিকল্পনামন্ত্রী এম মান্নানের একান্ত সচিব মো. হারুন অর রশীদ, জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাজেদুল ইসলাম, জগন্নাথপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মধু সুধন ধর, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রিজু, সহ সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম মশাহিদ, উপজেলা প্রকৌশলী গোলাম সারোয়ার, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন ভূঁইয়া, পাটলী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জমশেদ আলী, সাধারণ সম্পাদক মনু মোহাম্মদ মতছির, উপজেলা যুবলীগ সভাপতি কামাল উদ্দিন, পৌরসভার প্যানেল মেয়র সাফরোজ ইসলাম, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি কল্যাণ কান্তি রায় সানিসহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।
কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি সিরাজুল হক বলেন, ২০১৯ সালে ইউনিয়নের প্রবাসীদের প্রায় ১ কোটি টাকা ব্যয়ে দুই তলা বিশিষ্ট কলেজটি প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল।
এদিকে শুক্রবার জুম্মার নামাজের পূর্বে শান্তিগঞ্জ আব্দুল মজিদ জামে মসজিদে মুসল্লিদের সাথে মতবিনিময় করেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান। এ সময় পরিকল্পনা মন্ত্রীর একান্ত সচিব মো. হারুন অর রশিদ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আনোয়ার উজ জামান, মন্ত্রীর একান্ত ব্যক্তিগত রাজনৈতিক সচিব হাসনাত হোসেন, থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাজী মুক্তাদির হোসেন উপস্থিত ছিলেন।
এসময় পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, আমার নির্বাচনী এলাকায় উন্নয়ন হচ্ছে, আরও উন্নয়ন হবে। পাগলায় ব্রীজ হবে, গনিগঞ্জেও ব্রীজ হবে ইনশাল্লাহ।