শীত বাড়বে

সু.খবর ডেস্ক
বৃহস্পতিবারও দেশের বিভিন্ন স্থানে ইলশেগুঁড়ি বৃষ্টিও হতে পারে। এই শীতের সঙ্গে এমন বৃষ্টি থেমে গেলে, তখন দেশের তাপমাত্রা আরেকটু কমে যাবে। এমন পরিস্থিতিতে শুক্রবার থেকে বাড়তে পারে শীত। বুধবার আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে এমন তথ্য।
অধিদপ্তর বলছে, এই সময়ে বিভিন্ন স্থানে তাপমাত্রা ৮ থেকে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমে যাবে। এমন অবস্থা চলবে দেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল, উত্তর-পূর্বাঞ্চলের জেলা রাজশাহী, রংপুর, দিনাজপুর, পাবনা, টাঙ্গাইল, সিলেট ও কুষ্টিয়ায়।
বুধবার ভোর থেকেই মেঘলা আকাশ। দিনভর দেখা মেলেনি সূর্যের। কুয়াশায় ঢাকা চারপাশ। ভেজা ভেজা ঠান্ডা আবহাওয়ার মধ্যেই অল্প সময় ধরে ঝরেছে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি। মাঘের শীতে ভেজা সড়কে পা রেখে দিন শুরু করেছেন কর্মজীবী মানুষ।

এদিন রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে শীতের সঙ্গে বাড়তি দুর্ভোগ যোগ হয় বৃষ্টি। বৃষ্টিস্নাত দিনে সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছেন ছিন্নমূল মানুষ। তীব্র যানজট পোহাতে হয়েছে রাজধানীবাসীকে।

উত্তর জনপদে পৌষের শেষ ও মাঘের শুরুতে সপ্তাহখানেক টানা শৈত্যপ্রবাহ ছিল। গত ১৫ জানুয়ারি নওগাঁর বদলগাছীতে তাপমাত্রা নেমে যায়৬ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে, যা চলতি মৌসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। তবে বুধবার গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির মধ্যে তাপমাত্রা বেড়েছে অনেক এলাকায়। তাতে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বিদায় নিলেও ভেজা এই আবহাওয়ায় শীত লাগছে। ঘন কুয়াশার কারণে নদীতে নৌযান আর সড়কে যান চালাতে চালকদের হিমশিম খেতে হচ্ছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, বুধবার সকাল সাড়ে ৯টা থেকে সাড়ে ১০টা পর্যন্ত ঢাকায় দশমিক ৪ মিলিমিটার বৃষ্টি পড়েছে। তাপমাত্রা ছিল চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে ১১ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঢাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৬ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আবহাওয়াবিদ আবুল কালাম মল্লিক বলেন, দেশের কোথাও শৈত্যপ্রবাহ নেই। আগামী সাত দিন দেশে মাঝরাত থেকে সকাল পর্যন্ত ঘন কুয়াশা থাকবে। এই কুয়াশা সকালে সরে যাবে। তবে কোথাও কোথাও কুয়াশা সরতে দুপুর পর্যন্ত লেগে যেতে পারে।

তিনি বলেন, কেবল শৈত্যপ্রবাহ হলেই শীত বাড়ে, এমন নয়। এমনও আছে শৈত্যপ্রবাহ আছে, কিন্তু শীতের অনুভূতি কম। এটা অনেক নিয়ামকের ওপর নির্ভরশীল। বায়ুপ্রবাহের গতি, কুয়াশা কতখানি দীর্ঘস্থায়ী, বাতাস কোনদিক থেকে প্রবাহিত হয়- এ রকম অনেক বিষয়ের ওপর শীতের অনুভূতি নির্ভরশীল।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের জ্যেষ্ঠ আবহাওয়াবিদ ওমর ফারুক বলেন, বৃষ্টির পর শুক্রবার থেকে কয়েক দিন শীতের অনুভূতিও বাড়বে। শুষ্ক আবহাওয়ায় ঘন কুয়াশা ও শীতের তীব্রতা বেশ কয়েক দিন থাকতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, লঘুচাপে বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। মৌসুমের লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে বলে আবহাওয়ার এমন পরিস্থিতি।
সূত্র : সমকাল