শেষ মুহূর্তে উড়ছে টাকা বেড়েছে ডিজিটাল প্রচারণা

বিশেষ প্রতিনিধি
সুনামগঞ্জের প্রবাসী অধ্যুসিত জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদের নির্বাচন দুই নভেম্বর। শেষ মুহূর্তে বেড়েছে ডিজিটাল প্রচারণা, উড়ছে টাকা। এই উপজেলায় ভোটের প্রচারণায় প্রবাসীরা এসে যুক্ত হবার রেওয়াজ আছে আগে থেকেই। এবারও তাই হচ্ছে। শতাধিক যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী এসেছেন স্বজনের প্রচারণায়। এবার নতুন যুক্ত হয়েছে ডিজিটাল প্রচারণা। যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুক লাইভে দেশের স্বজন শুভানুধ্যায়ীদের কাছে নিজের পছন্দের প্রার্থীর জন্য ভোট চাইছেন অনেকে। প্রবাসে করা নির্বাচনী সভায় ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত করা হচ্ছে প্রার্থীকে।
নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন পাঁচ জন। এরা হলেন সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আকমল হোসেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুক্তাদীর আহমদ মুক্তা, বিএনপি নেতা আতাউর রহমান, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের প্রার্থী যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী সৈয়দ তালহা আলম ও যুক্তরাজ্য প্রবাসী স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্বাস উদ্দিন চৌধুরী।
প্রার্থীদের পক্ষে প্রচারণায় যুক্ত হতে গত এক সপ্তাহে শতাধিক প্রবাসী দেশে এসেছেন। প্রবাসীদের আগমনে প্রচারণা জমে ওঠেছে। টাকাও উড়ছে গ্রামে গ্রামে। নিজের পছন্দের প্রার্থীর পক্ষে মন খুলে খরচ করছেন প্রবাসীরা।
উপজেলার সৈয়দপুরের বাসিন্দা লন্ডন প্রবাসী মারূফ আহমদ বললেন, আত্মীয় স্বজন কেউ ভোটে দাঁড়ালে প্রবাসে থেকেও দুশ্চিন্তা হয়। এজন্য ভোটের প্রচারণায় দেশে আসি। এবারও এসেছি পছন্দের প্রার্থীর জন্য ভোট চাইতে। দেশে আসলে এমনিতেই নানা উপলক্ষে টাকা খরচ করে যাই আমরা। আসার সময় প্রস্তুতি নিয়েও আসি। নির্বাচন হলে তো এ ধরণের খরচ আরও বাড়াই স্বাভাবিক।
দেশে আসা প্রবাসীরা ছাড়াও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এবার সরব পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে থাকা জগন্নাথপুরের বাসিন্দারা।
নিজের ফেসবুক আইডি থেকে পছন্দের প্রার্থীর জন্য অনুনয় বিনয় করে ভোট চাইছেন প্রবাসীরা। ভিডিও বার্তা পাঠাচ্ছেন কেউ কেউ। প্রবাসে সভা করে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত করছেন নিজেদের পছন্দের প্রার্থীকে।
লন্ডন প্রবাসী আমিরুল হক বাবলু বুধবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চেয়ারম্যান প্রার্থী বন্ধু স্বতন্ত্র প্রার্থী মুক্তাদীর আহমদ মুক্তার জন্য ভোট চাইলেন। ভোট চেয়ে তাঁর অনুনয় বিনয় রীতিমত ভাইরাল হয়েছে।
মুক্তাদীর আহমদ মুক্তা বললেন, আমি ব্রিটিশ বাংলা এডুকেশন ট্রাস্ট, ব্রিটেনের নলুয়া যুব সংঘ, যুক্তরাজ্যের রৌয়াইল প্রবাসী সমিতি, যুক্তরাজ্যস্থ জগন্নাথপুর কল্যাণ সমিতি এবং বাংলাদেশ ওয়েল ফেয়ার এসোসিয়েশনের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। তারা আমাকে সহযোগিতার আশ^াস দিয়েছেন। অনেক প্রবাসী সহযোগিতার জন্য দেশে এসেছেন। আমার পক্ষে দেশে এবং প্রবাসে তরুণ এবং নারী ভোটার বেশি। প্রবাসে থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকে আমার জন্য ভোট প্রার্থনা করছেন।
আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আকমল হোসেনের জন্য যুক্তরাজ্যের একটি স্থানে এবং আমেরিকার ব্রোঞ্জ ও মিশিগান স্টেটে নির্বাচনী সভা হয়েছে। এসব সভায় ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়েছেন আকমল হোসেনও।
আকমল হোসেন বললেন, এবার নির্বাচনী প্রচারণায় যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র থেকে ৩০ জনের মতো শুভানুধ্যায়ী এসেছেন। লন্ডনে আমার সমর্থকরা সভা করেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান ও ব্রোঞ্জে আমার পক্ষে সভা হয়েছে। তারা নানাভাবে সহযোগিতা করছেন আমাকে।
জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের প্রার্থী যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী সৈয়দ তালহা আলম বললেন, যুক্তরাজ্য, কানাডা ও আমেরিকা থেকে স্বজন ও শুভানুধ্যায়ীদের মধ্যে ১৭ জন আমার প্রচরণায় এসে যুক্ত হয়েছেন। সকলেই এবার পরিবর্তন চান। গেল ১০-১২ বছর ধরে যারা ভোটের মাঠে আছেন, তাদের বদলে এবার নতুন মুখ চাচ্ছেন সকলে। নিরপেক্ষ ভোট হলে ইনশাল্লাহ্ ভালো করবো আমি।
বর্তমান চেয়ারম্যান আতাউর রহমানেরও ভাই ও ভাতিজা লন্ডন থেকে নির্বাচনী প্রচারণার জন্য এসেছেন। আরও কিছু শুভানুধ্যায়ী ভোটের প্রচারণায় এসে যুক্ত হয়েছেন।
আতাউর রহমান বললেন, প্রবাসে থাকা জগন্নাথপুরবাসীর সঙ্গে বিশেষ করে যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসীদের সঙ্গে অন্যান্যদের মতো আমিও যোগাযোগ করছি।
প্রসঙ্গত. জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মোট ভোটার এক লাখ ৮৯ হাজার ৩৯ জন। এরমধ্যে যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্টসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে বসবাস করেন কমপক্ষে ৬০ হাজার ভোটার।