সদরে অধিক গুরুত্বপূর্ণ মণ্ডপ ২২টি

স্টাফ রিপোর্টার
এবার জেলায় ৪২৪টি মণ্ডপে শারদীয় দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। গতবারের তুলনায় পূজা মণ্ডপ বেড়েছে ৫টি। সুনামগঞ্জ সদর উপজেলায় এবার ৪৯টি মণ্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব অনুষ্ঠিত হচ্ছে। পূজামণ্ডপের সুরক্ষায় মণ্ডপগুলোকে অধিক গুরুত্বপূর্ণ, কম গুরুত্বপূর্ণ ও সাধারণ এই তিনভাগে ভাগ করা হয়েছে। এই মণ্ডপগুলোর মধ্যে অধিক গুরুত্বপূর্ণ ২২টি, গুরুত্বপূর্ণ ৯টি এবং সাধারণ ১৮টি।
অধিক গুরুত্বপূর্ণ মণ্ডপগুলোর মধ্যে রয়েছে- ষোলঘর শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণ আশ্রম, নবারুন সংঘ পূজা কমিটি, নবীনগর সার্বজনীন পূজা কমিটি, ধোপাখালী যুবসংঘ সার্বজনীন পূজা কমিটি, পূর্ব নতুনপাড়া সার্বজনীন পূজা কমিটি, পশ্চিম নতুনপাড়া সার্বজনীন পূজা কমিটি, সেবক সংঘ পূজা কমিটি, মুক্তারপাড়া সার্বজনীন পূজা কমিটি, মধ্যবাজার ফ্রেন্ডস ক্লাব পূজা কমিটি, রায়পাড়া সোমপাড়া সার্বজনীন পূজা কমিটি, মল্লিকপুর কালিমন্দির পূজা কমিটি, হাসাউড়া কৃষ্ণতলা পূজা মণ্ডপ, রংপুর ভক্তেরগাঁও শিব মন্দির পূজা কমিটি, হাসাউড়া সার্বজনীন দেব মন্দির পূজা কমিটি, বড়ঘাট সার্বজনীন পূজা কমিটি, জয়নগর পূর্বপাড়া পূজা কমিটি, জয়নগর পশ্চিমহাটি সার্বজনীন কালি মন্দির, নৌকাখালী সার্বজনীন পূজা কমিটি, আব্দুল্লাহপুর পূজা কমিটি, জগন্নাথপুর পূজা কমিটি, সুরমা ক্লাব ইব্রাহিমপুর পশ্চিমপাড়া সদড়গড় পূর্বপাড়া পূজা কমিটি ও ইব্রাহিমপুর পূজা কমিটি।
গুরুত্বপূর্ণ মণ্ডপগুলোর মধ্যে রয়েছে- ষোলঘর উৎস সংঘ সার্বজনীন পূজা কমিটি, উত্তর নবীনগর সার্বজনীন পূজা কমিটি, সার্বজনীন দুর্গাবাড়ি পূজা কমিটি, উত্তর নতুন পাড়া সার্বজনীন পূজা কমিটি, বাধনপাড়া সার্বজনীন পূজা কমিটি, মধ্যবাজারের সন্ধানী ক্লাব পূজা কমিটি, ওয়েজখালী সার্বজনীন পূজা কমিটি, ত্রিনয়নী একতা সংঘ দুর্গাপূজা কমিটি, জানীগাঁও সার্বজনীন পূজা কমিটি।
সাধারণ মণ্ডপগুলোর মধ্যে রয়েছে- কেজাউড়া সার্বজনীন পূজা কমিটি, জয়দুর্গা পূজা কমিটি, ভ্রাতৃ সংঘ পূজা কমিটি, উকিলপাড়া সার্বজনীন পূজা কমিটি, ডিএস রোডের প্রদীপ চৌধুরী আচল এর পারিবারিক পূজা, শান্তিবাগের বিধুভূষন তালুকদার এর পারিবারিক পূজা, ওয়েজখালী পূর্বপাড়া সার্বজনীন পূজা কমিটি, ফিরোজপুর-জলিলপুর সার্বজনীন পূজা কমিটি, নিয়ামতপুর পূজা কমিটি, গৌরারং পূজা কমিটি, ইচ্ছারচর পূজা কমিটি, ইছবপুর সার্বজনীন পূজা কমিটি, লালারচর পূজা মণ্ডপ, সার্বজনীন মহামায়া মাতৃসংঘ পূজা কমিটি, সাদকপুর সার্বজনীন পূজা কমিটি, নারকিলা পূজা মণ্ডপ শ্রী সুকৃতি রঞ্জন তালুকদারের পারিবারিক পূজা, শ্রী রমেন্দ্র কুমার তালুকদারের পারিবারিক পূজা ম-প।
সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার এসআই ওমর ফারুক বলেন, নিরাপত্তার স্বার্থে আমরা মণ্ডপগুলোকে অধিক গুরুত্বপূর্ণ, গুরুত্বপূর্ণ ও সাধারণ এই ৩ ভাগে ভাগ করেছি। আমাদের পুলিশ ও আনসার সদস্যরা মণ্ডপে মণ্ডপে চলে গেছেন। শান্তিপূর্ণভাবেই পূজা সম্পন্ন হবে বলে আমরা আশা করছি।
জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি বিমান কান্তি রায় বলেন, অধিক গুরুত্বপূর্ণ মণ্ডপে ৮জন, গুরুত্বপূর্ণ মণ্ডপে ৬জন এবং সাধারণ মণ্ডপে ৪ জন আনসার সদস্য দায়িত্ব পালন করবে। মণ্ডপে পুলিশ সদস্যরাও থাকবেন। থাকবে মণ্ডপে কমিটির নিজস্ব স্বেচ্ছাসেবক বাহিনীও।