সভাপতি হতে চান ১৩ জন

বিশেষ প্রতিনিধি
সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় সংগঠনের তিন ইউনিটের নতুন কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত হওয়ায় এই তিন ইউনিটের নেতারা সক্রিয় হয়ে ওঠেছেন। একটি ইউনিটে ৪ টি কমিটি প্রস্তাব আকারে সংশ্লিষ্টদের কাছে জমা দেওয়া হয়েছে বলে দলীয় নেতারা জানিয়েছেন। তিন ইউনিটে সভাপতি হতে চান ১৩ জন দলীয় নেতা। এঁদের কেউ কেউ নিজেরা দলের দায়িত্বশীলদের কাছে তদবির করছেন, কারো কারো জন্য সমর্থকরাও নেমেছেন।
সংগঠনের ছাতক, দোয়ারাবাজার উপজেলা এবং মধ্যনগর থানা কমিটি বহুবছর হয় একাধিক বলয়ে বিভক্ত। এই তিন কমিটির মধ্যে ছাতক ও মধ্যনগরের দায়িত্বশীলরা ইতিমধ্যে মৃত্যুবরণও করেছেন।
দোয়ারাবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি নিয়ে বিভ্রান্তি বহুদিনের। উপজেলা আওয়ামী লীগের একাংশ (স্থানীয় সংসদ সদস্য মহিবুর রহমান মানিক সমর্থক) সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান প্রবীণ রাজনীতিক ইদ্রিছ আলী বীরপ্রতীককে আহ্বায়ক করা কমিটির নেতৃত্বে কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। অপরাংশ দাবি করে আসছে দলীয় নেতা ফরিদ আহমদ তারেককে আহ্বায়ক।
এই অবস্থায় আওয়ামী লীগের জেলা কমিটির সভায় এই উপজেলার কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত হয়।
ছাতক আওয়ামী লীগ সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক ও পৌর মেয়র আবুল কালামের নেতৃত্বে বিভক্ত অনেকদিন ধরেই।
এই উপজেলায় মুহিবুর রহমান মানিক সমর্থক অংশের আহ্বায়ক ছিলেন লুৎফুর রহমান সুরকুম, যুগ্মআহ্বায়ক ছিলেন ছানাউর রহমান ছানা। এরা দুজনই সম্প্রতি মৃত্যুবরণ করেছেন। এখন এই অংশের আহ্বায়ক ফজলুর রহমান ও যুগ্মআহ্বায়ক সৈয়দ আহমদ। এই পক্ষের পৌর কমিটির সভাপতি আব্দুল ওয়াহিদ মজনু ও সাধারণ সম্পাদক ফারুক মিয়া।
পৌর মেয়র আবুল কালাম চৌধুরী’র সমর্থকদের উপজেলা আহ্বায়ক আবরু মিয়া তালুকদার, যুগ্মআহ্বায়ক আজমল হোসেন সজল। এই অংশের পৌর কমিটির সভাপতি শাহাব উদ্দিন এবং সাধারণ সম্পাদক মৃণাল কান্তি দে মিন্টু।
মধ্যনগর থানায় আওয়ামী লীগের একাংশের আহ্বায়ক ছিলেন আব্দুল আউয়াল তালুকদার। যুগ্মআহ্বায়ক ছিলেন- নৃপেন্দ্র রায়, প্রবীর বিজয় তালুকদার, প্রভাকর তালুকদার পান্না, আব্দুল খালেক ও আলমগীর খসরু। আব্দুল আউয়াল ২০১৭’এর সেপ্টেম্বর মাসে মৃত্যুবরণ করলে এই অংশের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন নৃপেন্দ্র রায়।
অপরাংশের (স্থানীয় সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতন সমর্থক অংশ) আহ্বায়ক গিয়াস উদ্দিন নূরী, যুগ্মআহ্বায়ক মোবারক হোসেন ও জামাল হোসেন।
জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় এই তিন ইউনিটে নতুন কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত হওয়ায় নেতৃত্ব পেতে আগ্রহীদের তৎপরতা বেড়েছে।
মধ্যনগর থানা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক প্রবীর বিজয় তালুকদার জানিয়েছেন, মধ্যনগর আওয়ামী লীগের নেতারা ইতিমধ্যে আলাদা আলাদাভাবে ৪ টি কমিটি গঠন করে সংশ্লিষ্টদের কাছে জমা দিয়েছেন।
এর মধ্যে বর্তমান আহ্বায়ক গিয়াস উদ্দিন নূরী’র নেতৃত্বে একটি, বর্তমান আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আব্দুস শহীদ আজাদের নেতৃত্বে আরেকটি এবং যুগ্ম আহ্বায়ক নৃপেন্দ্র চন্দ্র রায় ও খসুরুজ্জামান বাবলু’র নেতৃত্বে পৃথক কমিটি প্রস্তাব করা হয়েছে।
এই ৪ প্রস্তাবিত কমিটি’র নেতারাই স্থানীয় সংসদ সদস্য, জেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ এবং কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে দৌঁড়াচ্ছেন বলে দলীয় একাধিক দায়িত্বশীলরা জানিয়েছেন।
দোয়ারাবাজার উপজেলার একাংশের আহ্বায়ক ইদ্রিছ আলী বীরপ্রতীক, যুগ্ম আহ্বায়ক সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক, অপরাংশের আহ্বায়ক ফরিদ আহমদ তারেক, যুগ্ম আহ্বায়ক ইউপি চেয়ারম্যান আমিরুল হক ও যুগ্ম আহ্বায়ক শামীমুল ইসলাম শামীম নেতৃত্বে আসার চেষ্টা করছেন।
ছাতক উপজেলায় আওয়ামী লীগের একাংশের আহ্বায়ক আবরু মিয়া তালুকদার, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফজলুর রহমান, ছাতক পৌরসভার সাবেক মেয়র আব্দুল ওয়াহিদ মজনু এবং ছৈলা-আফজলাবাদ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গয়াছ আহমদ নেতৃত্বে আসার তদবিরে রয়েছেন।
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমন জানালেন, মধ্যনগর এবং ছাতক আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীলদের কেউ কেউ বেঁচে নেই। দীর্ঘদিন ধরে এই দুই ইউনিটে কমিটি হচ্ছে না। দোয়ারাবাজারেও আহ্বায়ক কমিটি দিয়ে চলছে অনেক দিন ধরে, এজন্য এই তিন ইউনিটে নতুন কমিটি হবে। অন্য উপজেলাগুলো নিয়ে আগামী পহেলা অক্টোবর দলের বর্ধিত সভায় সিদ্ধান্ত হবে।
তিনি জানান, বর্ধিত সভায় সংগঠনের সিলেট বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় যুগ্মসম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আহমেদ হোসেন এবং সুনামগঞ্জের দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় নেতা ওবায়দুল মুক্তাদীর উপস্থিত থাকবেন। তাঁদের উপস্থিতিতে অন্য মেয়াদোত্তীর্ণ উপজেলাগুলোর বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।
জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মতিউর রহমান জানালেন, ছাতক, মধ্যনগর এবং দোয়ারাবাজারে দীর্ঘদিন হয় আহ্বায়ক কমিটি রয়েছে। এই তিন ইউনিটে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত হয়েছে জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভায়। অন্য উপজেলার মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটির বিষয়ে পহেলা অক্টোবরে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে বর্ধিত সভায় সিদ্ধান্ত হবে।