সম্ভাব্য প্রার্থীদের প্রচারণা চলছে

আকরাম উদ্দিন
সদর উপজেলার শহরতলীতে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগেই চলছে প্রচারণা। গ্রামে গ্রামে সম্ভাব্য প্রার্থীদের প্রচারণা জমে উঠেছে। প্রধান দুই দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মনোনয়ন পেতে চলছে তাঁদের দৌঁড়ঝাঁপ। ধরনা দিচ্ছেন জেলা উপজেলার শীর্ষস্থানীয় নেতাদের কাছে। নির্বাচনী উত্তাপ এবং প্রার্থীদের এমন দৌড়ঝাঁপ শুরু হলেও দুই দলেই এখনো প্রার্থী বাছাইয়ের কাজ শুরু হয়নি। তবুও কুরবাননগর ইউনিয়নের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীরা প্রচারপত্র ভোটারদের হাতে তুলে দিচ্ছেন। কুরবাননগর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসাবে প্রচারণায় রয়েছে মো. শামসুদ্দিন, মো. কুহিনুর আলম, মো. আফজল নুর, স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আবুল বরকত, মো.
শাহাবুদ্দীন, মো. আব্দুল মতিন, মো. কাওসার আলম, অ্যাড. রেজাউল করীম।
আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী আফজল নুর বলেন, আমি এবার চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করতে প্রচারণায় মাঠে আছি। নির্বাচনের অনেক আগে থেকে প্রচারণার মাধ্যম হিসাবে বিভিন্ন গ্রামে সভা করে যাচ্ছি। আমি আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশা করছি।
কুরবাননগর ইউনিয়নের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. শামসুদ্দীন বলেন, আমি বিগত সময়ে চেয়ারম্যান পদে একাধিকবার নির্বাচন করেছি। আমার স্বপ্ন ছিল ইউনিয়নে তৃণমূল পর্যায়ে পরিকল্পিত উন্নয়ন করার। এবার আমি অনেক আগে থেকে ইউনিয়নে সেবামূলক কাজ করে যাচ্ছি। মহামারী করোনা পরিস্থিতির সময় অনেক দরিদ্র মানুষের ঘরে ত্রাণ পৌঁছে দিয়েছি। ৪ দফা বন্যার সময়ও ত্রাণ পৌঁছে দিয়েছি দরিদ্র মানুষের ঘরে। আমি প্রায় প্রতিদিন ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছি। আমি দীর্ঘদিন ধরে আ.লীগের রাজনীতির সাথে যুক্ত রয়েছি। এই জন্য আমি আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাবো এই প্রত্যাশা করছি।
কুরবাননগর ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান মো. আবুল বরকত বলেন, আমার দায়িত্ব পালনে ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানের উন্নয়ন অব্যাহত আছে। ইতিমধ্যে রাস্তা-ঘাট, ব্রিজ কালভার্টসহ অনেক উন্নয়ন করেছি। ভয়াবহ বন্যার হাত থেকে ঘর-বাড়ি ও ফসলী জমি রক্ষায় সুরমা নদীর পাড়ে বেরীবাঁধ নির্মাণ করেছি। ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে উন্নয়ন কাজের পরিকল্পনা রয়েছে। ইতোমধ্যে কিছু প্রকল্পের বরাদ্দের কাজ শুরু হয়েছে। নির্বাচনের আগ মুহুর্ত পর্যন্ত উন্নয়ন কাজ চলমান থাকবে। আগামীতে আমি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে তৃণমূল পর্যায়ে ইউনিয়নের প্রতিটি স্থানে টেকসই উন্নয়ন সুচারুরূপে সম্পন্ন করব। মডেল ইউনিয়নে রূপান্তরিত করার প্রত্যাশা আমার।