সর্বোচ্চ সংখ্যক সহকারী শিক্ষক নিয়োগের দাবিতে মানববন্ধন

স্টাফ রিপোর্টার
‘মুজিব বর্ষের অঙ্গীকার থাকবে না কেউ বেকার’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে শূন্যপদের বিপরীতে সর্বোচ্চ সংখ্যক সহকারী শিক্ষক নিয়োগের দাবিতে সুনামগঞ্জে মানববন্ধন হয়েছে।
বুধবার বেলা ১১ টায় সুনামগঞ্জ জেলার সহকারী প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ২০২০ এর উত্তীর্ণ চাকুরী প্রত্যাশীদের আয়োজনে শহরের আলফাত স্কয়ারে এই মানববন্ধন হয়।
মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন দিপাল ভট্টাচার্য্য, লিটন বর্মন, আলমগীর কবির, নান্টু দাশ, হাকিমুল্লা, রুপম আহমেদ, রনি গোপাল, মোশারফ হুসেন, নুরুল হক, জাকির হোসেন, জয়ন্ত, হারুনুর রশীদ, রোপক সরকার, নুরুল হক প্রমুখ।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন ঘরে ঘরে সরকারি চাকুরীর ব্যবস্থা করে দিবেন। কিন্তু আজো সেই প্রতিশ্রুতির বাস্তবায়ন হয় নি। বিদায়ী প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণায়লে সচিব জানিয়েছিলেন, সারাদেশে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রায় ৫৮ হাজার সরকারী শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীও জানিয়েছিলেন, অবসরজনিত কারণে পদ সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। কিন্তু গত ১৯ নভেম্বর বেশ কিছু জাতীয় দৈনিকে বলা হয়, পদসংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে না। পদসংখ্যা বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত থেকে মন্ত্রণালয় সরে এসেছে। এটি করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত বেকারদের জন্য অত্যন্ত হতাশাজনক। অধিকাংশ নিয়োগ প্রার্থীরই বয়সসীমা শেষ হয়ে গেছে বা শেষ হওয়ার পথে।
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে বলাই আছে শূন্য পদে নিয়োগ দেয়া হবে। তাহলে কেন ১০/১৫ হাজার অবসরজনিত শূন্যপদে নিয়োগ নিশ্চিত করা যাচ্ছে না।
মানববন্ধনের পর জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী বরাবর স্মরকলিপি প্রদান করেন প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ চাকুরী প্রত্যাশীরা।