সাইকেল কাঁধে ঢুকতে হয় জেলা স্টেডিয়ামে

স্টাফ রিপোর্টার
দীর্ঘ কয়েক বছর পর প্রাণ ফিরেছে জেলা ফুটবল লীগে। প্রত্যেকদিন বিকেলে স্টেডিয়ামে চলছে প্রথম বিভাগ ফুটবল লীগের খেলা। দীর্ঘদিন পর মাঠে ফুটবলের দেখা পেয়ে উচ্ছসিত সুনামগঞ্জের মানুষ। তাই প্রত্যেকদিন অবসর সময়ে খেলার টানে মাঠে ছুটে আসেন সব বয়সী ফুটবল প্রেমী। ফুটবলের এমন সুদিনে স্টেডিয়াম ভর্তি দর্শক থাকার কথা। কিন্তু দর্শক আসবে কিভাবে? যেখানে স্টেডিয়ামের প্রবেশ মুখেই বাঁধা।
জেলা স্টেডিয়ামের দক্ষিণ প্রান্তে নির্মাণ করা হয়েছে সবচেয়ে বড় গ্যালারি। এই গ্যালারিতে আছে সর্বোচ্চ দর্শক ধারণ ক্ষমতা। বড় এবং খোলামেলা নিরিবিলি পরিবেশ হওয়ায় মূল গ্যালারির পর পরই মানুষের পছন্দের জায়গা এটি। এই গ্যালারিতে ঢুকার গেইটেই জমা হয়ে আছে কাদা—পানি। বিকেল বেলা স্বাচ্ছন্দ্যে ফুটবল খেলা উপভোগ করতে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে দর্শকদের। কয়েকটা ইটের উপর ভর করে মাঠে ঢুকছেন দর্শক।
সাইকেল চালিয়ে খেলা দেখতে আসা ব্রাহ্মণগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণির ছাত্র জাকারিয়া আহমেদকে দেখা যায় সাইকেল কাঁধে নিয়ে মাঠে প্রবেশ ও বের হচ্ছে। সে জানায়, মাঠে খেলা হচ্ছে শুনে খেলা দেখতে এসেছে। সাইকেল সাথে থাকায় মূল গেইটে না ঢুকে সাইকেল সহ দ্বিতীয় গেইট দিয়ে ঢুকেছে। ঢোকার পথে কাদা থাকায় সাইকেল কাঁধে নিয়ে ঢুকতে হয়েছে।
বেসরকারি কোম্পানিতে চাকরিরত নাঈম আহমেদ বললেন, অবসর বিকেলে খেলা দেখতে আসলাম। কাদা না মাড়িয়ে ঢোকার পথ নেই।
জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান ইমদাদ রেজা বললেন, ১ মাসের জন্য জেলা ফুটবল এসোসিয়েশন মাঠ নিয়েছে। এই একমাস তারা দেখভাল করবে। তারপরও তারা আমাদের মাঠের এমন অবস্থার কথা জানায়নি। জানালে ব্যবস্থা আগেই নেয়া যেতো।