সুনামগঞ্জে নির্বিঘ্নে আয়োজন শেষ বিএনপির

বিশেষ প্রতিনিধি
সিলেটে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ সফল করার লক্ষ্যে সুনামগঞ্জে নির্বিঘ্নে প্রচার শেষ করেছে বিএনপি। সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির উদ্যোগে সিলেটের আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে ‘সুনামগঞ্জ বিএনপি ক্যাম্প’ নামে আলাদা ক্যাম্পের কাজ চলছে আলিয়া মাদ্রসা মাঠে। কাল থেকেই ওই ক্যাম্পে গিয়ে নেতা কর্মীরা অবস্থান করতে পারবেন বলে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সিলেটে বিএনপির সমাবেশ ঘিরে পরিবহন শ্রমিকদেরও সুনামগঞ্জে এখনো পর্যন্ত (বুধবার সন্ধ্যা পর্যন্ত) কোন কর্মসূচী নেই। সুনামগঞ্জে আওয়ামী লীগ উপজেলা সম্মেলন নিয়ে ব্যস্ত থাকায় দুই দলের নেতা কর্মীরাই নিজেদের ভিন্ন ভিন্ন কর্মসূচী শেষ করছেন।
সুনামগঞ্জের ১২ উপজেলার মধ্যে ১০ উপজেলায় গেল সোমবার থেকে আওয়ামী লীগের উপজেলা সম্মেলন শুরু হয়েছে। প্রথম হয়েছে দিরাই উপজেলা সম্মেলন। শান্তিগঞ্জে ১৫ নভেম্বর ও জগন্নাথপুর উপজেলা ও পৌরসভা হয়েছে বুধবার। তাহিরপুর ও জামালগঞ্জের সম্মেলন পেছানো হয়েছে। ছাতক উপজেলা ও পৌরসভা ১৯, দোয়ারাবাজার ২০, ধর্মপাশা ২১ নভেম্বর ও শাল্লায় পহেলা ডিসেম্বর এবং সুনামগঞ্জ সদর ও পৌরসভায় দুই ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের ইউনিট সম্মেলন হবার কথা। বুধবার জগন্নাথপুর উপজেলা ও পৌরসভার সম্মেলন হয়েছে। সম্মেলন সফল করতে আসা কেন্দ্রীয় নেতা নুরুল ইসলাম নাহিদ ও কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আহমেদ হোসেনের সঙ্গে জেলা ও বিভিন্ন উপজেলার নেতারাও যাচ্ছেন সম্মেলনস্থলে।
অন্যদিকে, গেল আট নভেম্বর থেকে সুনামগঞ্জে বিএনপির সিলেট বিভাগীয় সমাবেশ সফল করার লক্ষে প্রচারপত্র বিলি শুরু সংগঠনের কেন্দ্রীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ডা. মঈন খান, কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. শাখাওয়াত হাসান জীবন সুনামগঞ্জ জেলা শহরে এই কর্মসূচী শুরু করেন। এরপর উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে চলে প্রচারপত্র বিলির কাজ।
জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম নুরুল বললেন, সুনামগঞ্জের সকল উপজেলা, ইউনিয়ন এবং গ্রামেও সিলেট বিভাগের বিএনপির সমাবেশের প্রচার শেষ করা হয়েছে। আজ (বুধবার) রাতেই সিলেটে হাজার হাজার নেতা কর্মীর যাবার সকল প্রস্তুতি শেষ হবে। কিভাবে যাওয়া, সেই নির্দেশনা দিয়ে সবকিছু গোছানো হবে। কেউ কেউ আগেই আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে চলে যাবেন। এজন্য আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে হচ্ছে ‘সুনামগঞ্জ বিএনপি ক্যাম্প’। আগে যারা যাবেন তাদেরকে প্রয়োজনীয় বাসন কোসন নিয়ে যাবার জন্য বলা হয়েছে। ক্যাম্পে রাত্রী যাপন করলে তাদেরকে খাবার পৌঁছে দেওয়া হবে।
জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন বললেন, জনগণের পক্ষে গণতান্ত্রিক অধিকার চর্চায় সুনামগঞ্জের প্রশাসন-পরিবহন সকলের সহযোগিতা প্রত্যাশা করছি আমরা। সুনামগঞ্জের ১২ উপজেলার কোথাও দলের কোন নেতা কর্মী গ্রেপ্তার হয় নি বলে জানান তিনি।
সুনামগঞ্জ জেলা বাস মিনিবাস কোচ মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক জেলা শ্রমিক লীগের সহসভাপতি নুরুল হক বললেন, সিলেটে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ লক্ষ্য করে সুনামগঞ্জে তাদের কোন কর্মসূচী নেই।
আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আহমেদ হোসেন (সিলেট বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত) বুধবার জগন্নাথপুরে সংগঠনের উপজেলা সম্মেলনে বক্তব্য দেবার সময় বললেন, আমরা কাউকে কিছু বলবো না, মারবো না। তবে গাড়িতে আগুন দিলে বাস চালককে হত্যা করলে, সন্ত্রাস সৃষ্টি করলে কাউকে রেহাই দিব না। ১০ তারিখের পর বিএনপি স্যালেন্ডার করবে।