১০ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৫০ ও সদস্য পদে ৪৯১ প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল

ছাতক প্রতিনিধি
ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দ্বিতীয় ধাপে ছাতকের ১০টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৫০ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। চেয়ারম্যান প্রার্থীদের মধ্যে সিংহভাগই সরকার দলীয়। অনেকেই দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে চেয়ারম্যান পদে বিদ্রোহী হয়েছেন। এছাড়া সংরক্ষিত নারী আসনে ১০৮ জন এবং সাধারন সদস্য পদে ৩৮৩ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে দাখিল করেন।
এরমধ্যে ছাতক সদর ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম বিগত নির্বাচনে দলীয় মনোনয়নে নৌকা প্রতীকে নির্বাচিত হয়েছিলেন। এ বছর দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন তিনি। এছাড়া রঞ্জন কুমার দাস (নৌকা), আছাদ আহমদ টিটু চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন। এ ইউনিয়নের ৯ ওয়ার্ডে সাধারন সদস্য পদে ২৮ জন এবং সংরক্ষিত সদস্য পদে ৯ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।
খুরমা উত্তর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে বর্তমান চেয়ারম্যান বিল্লাল আহমদ (নৌকা), শামসুল ইসলাম খান ও অ্যাড. মনির উদ্দিন (বিদ্রোহী) প্রার্থী হয়েছেন। এ ইউনিয়নে সাধারন সদস্য পদে ৩৩ জন এবং ৯ জন সংরক্ষিত নারী আসনে প্রার্থী হয়েছেন।
ইসলামপুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে বর্তমান চেয়ারম্যান আবদুল হেকিম (নৌকা), অ্যাড. সুফি আলম সোহেল (জামাত), মাওলানা আকিক হুসাইন ও কামরুল ইসলাম মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এ ইউনিয়নে সাধারন সদস্য পদে ৪৩ জন এবং সংরক্ষিত নারী আসনে ১২ জন প্রার্থী হয়েছেন।
কালারুকা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে বর্তমান চেয়ারম্যান ওদুদ আলম (নৌকা), আশরাফুল আলম (বিএনপি) ও শেখ সেলিম আরাফাত মিয়া প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এ ইউনিয়নে সাধারণ সদস্য পদে ৪০ জন এবং সংরক্ষিত নারী আসনে পদে ১০ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।
ছৈলা-আফজলাবাদ ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান গয়াস আহমদ (নৌকা), হাফিজুর রহমান, আব্দুল খালিক (বিদ্রোহী), জামাল উদ্দিন, মিজানুর রহমান মানিক, শফিকুল হক, নানু মিয়া (বিএনপি), খালেদুর রহমান চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন। এ ইউনিয়নে সাধারণ সদস্য পদে ৩৫ জন এবং সংরক্ষিত নারী আসনে ১০ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।
দোলারবাজার ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে বর্তমান চেয়ারম্যান শায়েস্থা মিয়া (নৌকা), নুরুল আলম (বিএনপি), আসমত আলী, আমির উদ্দিন (বিদ্রোহী), আনোয়ার হোসেন (বিদ্রোহী), আব্দুল ছালিক মিলন তালুকদার মমোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এ ছাড়া সাধারণ সদস্য পদে ৩৯ এবং সংরক্ষিত নারী আসনে ১১ জন প্রার্থী হয়েছেন।
চরমহল্লা ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান আবুল হাসনাত (বিএনপি), বীর মুক্তিযোদ্ধা কদর মিয়া (নৌকা), জালাল উদ্দীন, ছোরাব আলী, কামরুল ইসলাম, তাজুদ আলী, জসিম উদ্দিন তালুকদার প্রার্থী হয়েছেন চেয়ারম্যান পদে। এ ইউনিয়নে সাধারণ সদস্য পদে ৪৭ এবং সংরক্ষিত নারী আসনে ১৪জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।
খুরমা দক্ষিণ ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল মছব্বির (নৌকা), আব্দুল খালিক (বিদ্রোহী), জয়নাল আবেদীন (বিদ্রোহী), আবুল কাশেম হাসান, আবু বক্কর সিদ্দিক (বিদ্রোহী), গোলাম আজম তালুকদার মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এ ইউনিয়নে সাধারণ সদস্য পদে ৩৫ জন এবং সংরক্ষিত সদস্য পদে ৯ জন প্রার্থী হয়েছেন।
গোবিন্দগঞ্জ-ছৈদেরগাও ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান আখলাকুর রহমান (বিদ্রোহী), আলহাজ্ব সুন্দর আলী (নৌকা) ও নিজাম উদ্দিন (বিদ্রোহী) চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন। এ ইউনিয়নে সাধারণ সদস্য পদে প্রার্থী হয়েছেন ৩৮ এবং সংরক্ষিত নারী আসনে প্রার্থী হয়েছেন ১১ জন প্রার্থী।
জাউয়া বাজার ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন দাখিল করেছেন বর্তমান চেয়ারম্যান মোরাদ হোসেন (বিদ্রোহী), আলহাজ্ব নুরুল ইসলাম (নৌকা), রেজা মিয়া তালুকদার (বিদ্রোহী), আফরোজ আলী, আব্দুল হক (বিদ্রোহী), আল আমিন (বিএনপি), আসাদুল হক মঞ্জু, ফারুক আহমদ, আসাদুর রহমান পীর, লায়েক আহমদ ও সুবেদ আহমদ রাজন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এ ইউনিয়নে সাধারণ সদস্য পদে ৪৫ জন প্রার্থী এবং সংরক্ষিত নারী আসনে প্রার্থী হয়েছেন ১৩ জন।
মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিনে উপজেলা জুড়ে বিরাজ করছিল নির্বাচনী উৎসব। প্রার্থীরা কমী সমর্থক নিয়ে বিকেল ৫ টার মধ্যে স্ব-স্ব ইউনিয়নের রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে চেয়ারম্যান, সাধারন ও সংরক্ষিত আসনে নারী সদস্যরা মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। আগামী ১১ নভেম্বর উপজেলার ১টি ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।