৫ বছরে একদিনের জন্যও ব্যবহার হয়নি সেতুটি

আমিনুল ইসলাম, তাহিরপুর
তাহিরপুরে বাদাঘাট-চানপুর সড়কে শান্তিপুর নদীর উপর পাঁচ বছর পূর্বে নির্মিত সেতুটি একদিনের জন্য ব্যবহার করতে পারেনি এলাকার জনগণ। সেতুটির উভয় দিকে প্রটেকসন ওয়াল এবং সংযোগ সড়ক না থাকায় সেতুটি ব্যবহার করা যাচ্ছে না বলে সেতু সংলগ্ন স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন।
সরজমিনে দেখা গেছে, শান্তিরপুর নদীর উপর সড়ক ছাড়া উঁচু দেয়ালের মতো দাঁড়িয়ে রয়েছে সেতুটি। সেতুটির দক্ষিণ পাশের সংযোগ সড়ক রয়েছে কিন্তু উত্তর পাশের সংযোগ সড়ক নেই, এমনকি এপ্রোচেও মাটি নেই।
সেতু নির্মাণের ৫ বছর অতিবাহিত হলেও সেতুটি একদিনের জন্য ব্যবহার করতে পারেননি উপজেলার ৩ লক্ষাধিক জনগোষ্ঠী। হেমন্তে নদীটি শুকিয়ে গেলে তখন চলাচল করতে পারে লোকজন, কিন্তু বর্ষায় নদীটি ডুবে থাকার কারণে এ পথে যাতায়াত করতে গিয়ে এলাকাবাসী পড়েন নানামুখী সমস্যায়। জানা যায়, ২০১৬-১৭ অর্থবছরে এলজিইডি (সুনামগঞ্জ) হিলিপ প্রকল্প ৩২ লক্ষাধিক টাকা ব্যয়ে সেতুটি নির্মাণ করে দেয়।
উত্তর বড়দল ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আবুল কাশেম বলেন, সেতুটির উত্তর পাশে এবং দক্ষিণ পাশে কোন সংযোগ সড়ক ছিল না। সংযোগ সড়ক নির্মাণের জন্য তিনি উত্তর বড়দল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের দায়িত্বে থাকাকালীন ২০১৭ সালে অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচী প্রকল্প থেকে ৩ লক্ষ ২০ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছিল। শান্তিপুর বাজারের উত্তর পাশ হতে সেতু পর্যন্ত সংযোগ সড়কে মাটির কাজও করা হয়েছিল। কিন্তু মাটি সংরক্ষণের জন্য পরবর্তীতে কোন বরাদ্দ না পাওয়ায় বর্ষাকালে পাহাড়ি ঢলের তোড়ে সব মাটি নিয়ে গেছে। সেতুর উপর দিয়ে চলাচল করতে হলে উভয় পাশে গার্ডার ওয়াল সহ উভয় দিকের সড়কের কাজ সম্পন্ন করতে হবে। নতুবা সেতুটি এলাকার মানুষের জন্য কোন কাজে আসবে না।
সীমান্তের রাজাই গ্রামের আব্দুল মুতালিব বলেন, সড়ক নির্মাণের পরিকল্পনা ছাড়া সেতু নির্মাণ করা খামখেয়ালিপনা ছাড়া আর কিছুই নয়।
চানপুর বাজারের ব্যবসায়ী হেকমত আলী বলেন, শান্তিপুর নদীর সেতুর সংযোগ সড়কটি স্থাপন না করায় তারা ৪ কিলোমিটার অতিরিক্ত রাস্তা মাহারাম-গুটিলা গ্রাম ঘুরে তাহিরপুর উপজেলা সদরে আসা যাওয়া করতে হয়।
সেতুটি চলাচলের উপযোগী করা হলে আমাদের অনেকপথ ঘুরে তাহিরপুর সদরে যাতায়াত করতে হতো না। আমরা সহজেই চানপুর বাদাঘাট সড়ক ব্যবহার করে তাহিরপুর সদরে যাতায়াত করতে পারতাম।
উত্তর বড়দল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মাসুক মিয়া বলেন, আগামী অর্থ বছরে শান্তিপুর নদীর উপর সেতুটির সংযোগ সড়ক নির্মাণ করা হবে। এ বিষয়টি তিনি উপজেলা পরিষদের সমন্বয় সভায় আলোচনা করেছেন বলে জানান।
তাহিরপুর উপজেলা উপ-সহকারী প্রকৌশলী (এলজিইডি) ফজলুল হক বলেন, সেতুটি সর্বসাধারণের চলাচলের উপযোগী করতে হলে সেতুর উভয় দিকে প্রটেকসন ওয়াল দিয়ে সংযোগ সড়ক নির্মাণ করতে হবে।