৭ দিনের লকডাউন- চাপা উৎকন্ঠা ব্যবসায়ীদের মাঝে

স্টাফ রিপোর্টার
করোনা পরিস্থিতির ক্রমাগত অবনতি হওয়ায় আগামী সোমবার থেকে এক সপ্তাহের জন্য সারাদেশে লকডাউন ঘোষণা করছে সরকার। সারাদেশের মতো এসময় বন্ধ থাকবে সুনামগঞ্জের সকল দোকানপাট। এতে ব্যবসায়ীদের মধ্যে চাপা উৎকন্ঠা বিরাজ করে।
পৌরশহরের পুরাতন বাসস্ট্যান্ড এলাকার দোকানদার মো. তৈয়বুর রহমান বলেন, ‘আগের লকডাউনের ক্ষতি থেকে উঠতে পারছি না। এখনও মানুষের ধারদেনা পরিশোধ করতে হচ্ছে। বকেয়া ৬ মাসের ভাড়া ৬০ হাজার টাকা দোকান বন্ধ রেখেই দিয়েছি। এখন আবারও লকডাউন। দোকান বন্ধ রাখলে দোকানের মালিককে ভাড়া তো ঠিকই দেয়া লাগবে। তাই ব্যপারে সরকারের চিন্তাশীল সিদ্ধান্ত জরুরী।’
একই এলাকার ব্যবসায়ী হোসেনের মাঝেও রয়েছে উৎকন্ঠা। দোকান বন্ধ রাখলে পরিবার নিয়ে বিপাকে পড়তে হবে উল্লেখ্য করে তিনি বলেন, বাসা ভাড়া আছে। পরিবারের খরচ আছে। আবারও দোকান বন্ধ রাখলে সমস্যায় পড়তে হবে।
তাহিরপুর উপজেলার উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নের ইলেক্টনিক্স দোকানের মালিক গফফার মিয়া। ৭ জন সদস্যের পরিবার তার। ছোট দোকানের উপরই নির্ভর করেই পরিবার চলে। আবারও লকডাউনের কথা শুনে উৎকন্ঠায় রয়েছেন তিনি।
গফফার বললেন, দোকানের আয় দিয়েই পরিবার চালাই। দোকান বন্ধ থাকলে না খেয়ে থাকতে হবে। প্রথম লকডাউনের সময় স্বচ্ছল আত্মীয়দের বলে কয়ে ঋণ নিয়ে পরিবার চালিয়েছি। এখন ঋণও পাওয়া যাবে না বলে জানিয়েছেন তিনি।
ব্যবসায়ী মিজানুর রহমান মিজান বলেন, সরকারের নির্দেশনা আমরা মানবো। তবে এই কয়েকদিনে আমাদের যে লোকসান হবে তার ক্ষতিপূরণ দেয়া হোক।
সুরমা মাকেটের তৈরি পোষাক বিক্রেতা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক বিমল বণিক বলেন, সামনে পবিত্র রমজান মাস। বছর শেষে আমাদের সন (হালখাতা)। ব্যবসায়ীরা তো এমনিতেই করোনাকালীন সময়ে ঋণগ্রস্ত। যদিও সরকারি প্রণোদনা পেয়েছে। কিন্তু সেটা খুবই কম। প্রশাসনের কাছে আমাদের আবেদন- সময় বেধে দেয়া হোক, স্বাস্থ্যবিধি মেনে আমরা ব্যবসা করতে চাই। দোকানপাট বন্ধ না দেয়ার দাবি এই ব্যবসায়ী নেতার।
সুনামগঞ্জ চেম্বার অফ কমার্স’র পরিচালক এনামুল হক এ বিষয়ে বলেন, যদিও আমাদের ব্যবসায়ীদের অনেক লোকসান হবে। তবু লকডাউনের বিষয়ে সরকার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তা আমাদের মানতেই হবে। কারণ দেশের করোনা পরিস্থিতি প্রতিদিন খারাপের দিকে যাচ্ছে। তাই আগামী ৫ থেকে ১২ এপ্রিল পর্যন্ত দোকানপাট ও শপিংমল বন্ধ থাকবে। তবে লকডাউন এক সপ্তাহের বেশি না বাড়ানোর দাবি জানান তিনি।