২১ ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পেলেন যারা

স্টাফ রিপোর্টার
দেশব্যাপী অনুষ্ঠেয় চতুর্থ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগের চেয়ারম্যান প্রার্থীদের দলীয় মনোনয়ন চূড়ান্ত করেছে আওয়ামী লীগ। চতুর্থ ধাপে আগামী ২৩ ডিসেম্বর এসব ইউনিয়ন পরিষদে ভোট নেওয়ার কথা থাকলেও তা পিছিয়েছে। নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ২৬ ডিসেম্বর এসব ইউপিতে জনপ্রতিনিধি নির্বাচনে ভোট নেওয়া হবে।
মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের মুলতবি সভায় এসব মনোনয়ন চূড়ান্ত করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ ও মনোনয়ন বোর্ডের সভাপতি শেখ হাসিনা সভায় সভাপতিত্ব করেন। পরে মঙ্গলবার রাতে দলের দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসব মনোনীত প্রার্থীদের তালিকা গণমাধ্যমে পাঠিয়েছেন।
প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সোমবারের স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের মুলতবি সভায় চতুর্থ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগের ইউনিয়ন পরিষদগুলোতে অনুষ্ঠেয় নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রার্থী মনোনীত করেছে আওয়ামী লীগ। সভায় সুনামগঞ্জ জেলার ৩ উপজেলার ২১ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীরা হলেন-
জগন্নাথপুর উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নে মো. আলাল হোসেন, চিলাউরা হলদিপুর ইউনিয়নে মো. আব্দুল গফুর, রানীগঞ্জ ইউনিয়নে শেখ মো. ছদরুল ইসলাম, সৈয়দপুর শাহারপাড়া ইউনিয়নে মোহাম্মদ আবুল হাসান, আশারকান্দি ইউনিয়নে মো. আঃ ছাত্তার, পাইলগাঁও ইউনিয়নে মো. সুন্দর উদ্দিন, পাটলী ইউনিয়নে মো. আংগুর মিয়া।
দিরাই উপজেলার রফিনগর ইউনিয়নে শৈলেন্দ্র কুমার তালুকদার, ভাটিপাড়া ইউনিয়নে মাহমুদুল হাসান চৌধুরী, রাজানগর ইউনিয়নে মো. সফিকুল হক তালুকদার, চরনারচর ইউনিয়নে জগদীশ সামন্ত, দিরাই সরমঙ্গল ইউনিয়নে রঞ্জিত রায়, করিমপুর ইউনিয়নে লিটন চন্দ্র দাস, জগদল ইউনিয়নে মো. হুমায়ূন রশীদ, তাড়ল ইউনিয়নে মো. আহম্মদ চৌধুরী, কুলঞ্জ ইউনিয়নে মো. মিলন মিয়া।
বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নে মো. হেলাল উদ্দিন, বাদাঘাট দক্ষিণ ইউনিয়নে জামাল হোসেন, পলাশ ইউনিয়নে মোহাম্মদ নুরুল আলম, ধনপুর ইউনিয়নে মো, হযরত আলী, সলুকাবাদ ইউনিয়নে মোহাম্মদ নুরে আলম সিদ্দিকী মনোনয়ন পেয়েছেন।
প্রসঙ্গত, তফসিল অনুযায়ী- মনোনয়নপত্র দাখিল ২৫ নভেম্বর। বাছাই ২৯ নভেম্বর। আপিল ৩০ থেকে ২ ডিসেম্বর। আপিল নিষ্পত্তি ৩ থেকে ৫ ডিসেম্বর। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ৬ ডিসেম্বর। প্রতীক বরাদ্দ ৭ ডিসেম্বর। আর ভোটগ্রহণ হবে ২৩ ডিসেম্বর।